kalerkantho


ওয়ালটনে চুক্তিভিত্তিক ৩৩০ নিয়োগ

সেলস এক্সিকিউটিভ, সেলস অফিসার ও ড্রাইভার পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে ওয়ালটন গ্রুপ। আবেদন করতে হবে ১৬ এপ্রিলের মধ্যে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন আরাফাত শাহরিয়ার

১১ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



ওয়ালটনে চুক্তিভিত্তিক ৩৩০ নিয়োগ

বিভিন্ন ওয়ালটন প্লাজায় সেলস এক্সিকিউটিভ পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া হবে ১৫০ জন। সেলস অফিসার পদেও চুক্তিভিত্তিক নেওয়া হবে ১৫০ জন। ড্রাইভার (পিকআপ) ও ড্রাইভার (প্রাইভেট কার, মাইক্রোবাস, জিপ) পদে ৩০ জন নিয়োগ পাবেন। ইলেকট্রনিক পণ্যের নতুন রিটেইলার ও গ্রাহক তৈরি, নিয়মিত বাজার পরিদর্শন, গ্রাহকসেবা নিশ্চিত করাই হবে সেলস এক্সিকিউটিভ ও সেলস অফিসারদের কাজ। দেশের যেকোনো জায়গায় কাজের মানসিকতা থাকতে হবে।

 

আবেদনের যোগ্যতা

সেলস এক্সিকিউটিভ পদে আবেদনের জন্য কমপক্ষে স্নাতক হতে হবে। ন্যূনতম এইচএসসি পাস হলেই আবেদন করা যাবে সেলস অফিসার পদে। উভয় পদের প্রার্থীদের বয়স হতে হবে অনূর্ধ্ব ২৫ বছর। ইলেকট্রিক্যাল অ্যাপ্লায়েন্স বিপণন ও বিক্রয় কাজে অভিজ্ঞ প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। অভিজ্ঞদের শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিলযোগ্য। ড্রাইভার পদে কমপক্ষে পাঁচ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। থাকতে হবে ড্রাইভিং লাইসেন্স। এসএসসি পাস প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। বয়স হতে হবে অনূর্ধ্ব ৩৫ বছর।

 

আবেদনের নিয়ম

প্রার্থীর পূর্ণ জীবনবৃত্তান্ত, এক কপি রঙিন পাসপোর্ট সাইজের ছবি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত ফটোকপিসহ আবেদনপত্র পাঠাতে হবে ‘নির্বাহী পরিচালক, এইচআরএম অ্যান্ড অ্যাডমিন বিভাগ, ওয়ালটন করপোরেট অফিস, প্লট নম্বর ১০৮৮, ব্লক-আই, রোড-সাবরিনা সোবহান, ৫ এভিনিউ, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ভাটারা, ঢাকা-১২২৯’ ঠিকানায়। ড্রাইভারদের বেলায় আবেদনপত্রের সঙ্গে জমা দিতে হবে ড্রাইভিং কাজে অভিজ্ঞতার সনদপত্রের সত্যায়িত কপি। আবেদন করতে হবে আগামী ১৬ এপ্রিলের মধ্যে।

 

লিখিত পরীক্ষা

ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক

(পলিসি, এইচআরএম অ্যান্ড অ্যাডমিন)

এস এম জাহিদ হাসান জানান, সেলস এক্সিকিউটিভ ও সেলস অফিসার পদে প্রথমে লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়। দুটি পদের পরীক্ষা হয় আলাদা। তবে প্রশ্নের ধরন প্রায় একই। লিখিত পরীক্ষায় সাধারণত বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান এবং পদ সম্পর্কিত প্রশ্ন করা হয়। লিখিত পরীক্ষায় নম্বর বরাদ্দ থাকবে ৫০ নম্বর। লিখিত পরীক্ষায় এমসিকিউ টাইপের প্রশ্ন আসতে পারে। কিছু সংক্ষিপ্ত-উত্তর টাইপের প্রশ্নও হতে পারে। যেমন—রোহিঙ্গা সমস্যা বা ওয়ালটন নিয়ে কিছু লিখতে বলা হলো। কোনো নির্ধারিত বিষয়ে টিকা লিখতে বলা হতে পারে।

 

তথ্য-প্রযুক্তি ও ব্যবহারিক পরীক্ষা

লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের ডাকা হয় আইটি টেস্ট ও ভাইভার জন্য। এ দুটি পরীক্ষা হয় একই দিনে । বাংলা ও ইংরেজি কম্পোজ, ই-মেইল ব্যবহার, ইন্টারনেট ব্রাউজিং পারে কি না তা দেখা হয় আইটি টেস্টে। বিক্রয় কার্যক্রম অনলাইনভিত্তিক। সফটওয়্যার চালানোর মতো দক্ষতা আছে কি না তা-ও দেখা হয় এ পরীক্ষায়। আইটি টেস্টে সন্তোষজনক নম্বর পেলে ভাইভা নেওয়া হয়। ড্রাইভার পদে প্রথমে ব্যাবহারিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। বাংলা ও ইংরেজি পড়তে ও বুঝতে পারতে হবে। যারা টিকবে, তাদের পরে ভাইভা নেওয়া হবে।

 

মৌখিক পরীক্ষা

সেলস এক্সিকিউটিভ ও সেলস অফিসার পদে ১০০ নম্বরের ভাইভা নেওয়া হতে পারে। বুদ্ধিমত্তা, যোগ্যতা, কাজের আগ্রহ ও পেশাগত দক্ষতা যাচাই করা হয় ভাইভা বোর্ডে। এস এম জাহিদ হাসান জানান, কেমন উপস্থিতবুদ্ধি, কতটা চটপটে, কথা বলার ভঙ্গি, আঞ্চলিকতার টান আছে কি না—এসব দেখা হয়। প্রশ্ন করা হবে কাজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে। যে বিষয়ের ওপর পড়াশোনা করেছে, তা থেকেও প্রশ্ন করা হবে। সাধারণ জ্ঞান, ওয়ালটন ও প্রার্থীর নিজ জেলা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হতে পারে। অনেক সময় প্রার্থীকে দুই মিনিট সময় দেওয়া হয় নিজের সম্পর্কে বলার জন্য। বিভিন্ন ট্রাফিক সাইন, কোন সাইনের অর্থ কী, ডিভাইডারের কোন দাগের কী মানে—এসব বিষয়ে জানতে চাওয়া হতে পারে ড্রাইভার পদে।

 

বেতন-ভাতা

প্রতিষ্ঠানের নিয়ম অনুযায়ী বেতনের পাশাপাশি ইনক্রিমেন্ট, বার্ষিক দুটি বোনাসসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে। ভালো পারফরম্যান্সের ওপর দেওয়া হবে বিশেষ সুবিধা। ভালো দক্ষতা দেখাতে পারলে স্থায়ীভাবে নিয়োগ দেওয়া হবে।

হাতে-কলমে কাজ জানা থাকতে হবে

এস এম জাহিদ হাসান

নির্বাহী পরিচালক, পলিসি, এইচআরএম অ্যান্ড অ্যাডমিন, ওয়ালটন গ্রুপ

 

বছরজুড়েই ওয়ালটনে নিয়োগ কার্যক্রম চলে। নতুন নতুন প্রজেক্টের জন্য প্রচুর টেকনিক্যাল ও নন-টেকনিক্যাল লোকের চাহিদা সৃষ্টি হচ্ছে। যেখানে প্রতিবছর আমরা দক্ষ, আধাদক্ষ ও ফ্রেশারদের সুযোগ দিচ্ছি। ওয়ালটনে চাকরির ক্ষেত্রে টেকনিক্যালদের তাত্ত্বিক জ্ঞানের পাশাপাশি হাতে-কলমে কাজ জানা থাকতে হবে। আর নন-টেকনিক্যালদের ক্ষেত্রে থাকতে হবে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জ্ঞান। শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, বয়স দেখা হয়। এ ছাড়া বাচনভঙ্গি, আচরণ ও শারীরিক যোগ্যতা বিশেষ গুরুত্ব পেয়ে থাকে। সমসাময়িক বিষয়ে ভালো ধারণা রাখেন, এমন প্রার্থীরা এগিয়ে থাকেন।


মন্তব্য