kalerkantho


টিন তারকা

বাবার স্বপ্ন পূরণ করছি

বছর দুই আগে গুডলাক বল পেনের বিজ্ঞাপন দিয়ে শোবিজ যাত্রা শুরু। এখন পর্যন্ত ৫০টির মতো বিজ্ঞাপন করেছে সাদমান শারার যায়ান। অভিষেক হয়ে গেছে চলচ্চিত্রেও। নাটকেও নিয়মিত দেখা যায় এই খুদে তারকাকে। দলছুটের মুখোমুখি সে—

৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০



বাবার স্বপ্ন পূরণ করছি

দলছুট : শোবিজে কিভাবে?

 

যায়ান : তিন বছর আগে বাবা বাংলাদেশ শিশু একাডেমিতে নাট্যকলায় ভর্তি করে দিয়েছিলেন। সেখানে একদিন একটি প্রডাকশন হাউস থেকে লোক আসে। তারা বিজ্ঞাপনের জন্য শিশুশিল্পীর খোঁজে এসেছিল। কয়েক রাউন্ডের অডিশন দিয়ে গুডলাক বল পেনের একটি বিজ্ঞাপনে মডেলিংয়ের সুযোগ পেয়েছিলাম। বানিয়েছিলেন পোস্ট অফিস প্রডাকশন হাউসের পরিচালক টিটো রহমান। বিজ্ঞাপনটি দারুণ আলোচিত হয়েছিল। তার পরই চারদিক থেকে আরো সুযোগ আসতে শুরু করে।

 

দলছুট : তার মানে বাবার ইচ্ছাতেই?

যায়ান : আমরা পুরান ঢাকার বংশালে থাকি। বাবা এলাকায় শখের বশে থিয়েটার করতেন। থিয়েটার করতে গিয়ে তাঁর মনে স্বপ্ন জাগে, শোবিজে কাজ করবেন। কিন্তু নানা কারণেই তাঁর স্বপ্ন পূরণ হয়নি। সেই স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব আমাকে দিয়েছেন। তাই বাবার স্বপ্ন পূরণ করছি। তবে অভিনয়ে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার স্বপ্ন এখন আমারও।

প্রথম যেদিন ডাক আসে, সেদিন বাবা কক্সবাজার। আমাকে পরদিন সকাল ১০টার মধ্যে বনানীতে প্রডাকশন অফিসে যেতে হবে। এটা শুনে সব ফেলেফুলে তিনি ঢাকায় রওনা হন। তাঁর পৌঁছতে দেরি হয়ে যাচ্ছে দেখে মাকে বলে দেন আমাকে নিয়ে যেতে। এরপর সরাসরি তিনি বনানীতে হাজির হন। অডিশনের ছয়-সাত দিনই নেত্রকোনায় শুটিংয়ের দিনগুলোতে বাবা আমার সঙ্গে ছিলেন।

 

দলছুট : এ পর্যন্ত কী কী কাজ করেছ?

যায়ান : গুডলাক বল পেন, নিডো, ম্যাগি, উইফোন, ডাব্লিউপিএসএ এগ, সেন্টার জেল গাবল গাম, লারিভ, ভ্যাট দিবস, রবি ইত্যাদি। অরণ্য পলাশের ‘গন্তব্য’ ছবিতে অভিনয় করেছি। এ ছাড়া বেশ কয়েকটি নাটকের পাশাপাশি ‘শুধু তোমাকে’ শিরোনামের একটি গানে মডেলিং করেছি। শিশু একাডেমি থিয়েটার প্রযোজিত সুকুমার রায়ের ‘অবাক জলপান’ মঞ্চনাটকের প্রধান চরিত্রে অভিনয় করি আমি।

 

দলছুট : চলচ্চিত্রে সুযোগ পেলে কিভাবে?

যায়ান : গন্তব্য ছবিতে অভিনয়ের জন্য ভালো অভিনয় জানা একজন শিশুশিল্পী খুঁজছিলেন পরিচালক। পরে আমার অন্যান্য কাজ দেখে বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এর পরই ছবিটিতে অভিনয়ের সুযোগ পাই।

 

দলছুট : ভবিষ্যতের প্ল্যান কী?

যায়ান : পড়াশোনা ভালোমতো চালিয়ে যেতে চাই। সঙ্গে টুকটাক অভিনয়। ভাবনাটা না হয় বড় হয়েই ভাবব। তবে বাবার স্বপ্নটা ভালোমতো পূরণ করতে চাই।

 

দলছুট : একটা মজার ঘটনা শুনি।

যায়ান : একটি বিজ্ঞাপনচিত্রের শুটিং করতে তেজগাঁও গিয়েছি। সেখানে গিয়ে দেখি, মাশরাফির সঙ্গে শুটিং! আমার অভিনয় দেখে তিনি পিঠ চাপড়ে দিয়েছেন। কথা বলেছেন। এটা এখনো স্বপ্নের মতো লাগে। এ ছাড়া ক্রিকেটার মোস্তাফিজের সঙ্গে শুটিং করাও দারুণ মজার ছিল।

সাক্ষাৎকার নিয়েছেন আতিফ আতাউর


মন্তব্য