kalerkantho

বিশ্বকাপ ২০১৮

কাপ কথা

যার জন্য মাঠে চলছে ধুন্ধুমার লড়াই, নাম তার ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ ট্রফি। তবে শুরুতে নাম এটা ছিল না। ১৯৩০ থেকে ১৯৭০ সাল পর্যন্ত বিশ্বকাপ ট্রফিকে ডাকা হতো জুলেরিমে নামে। ১৯৭৪ সাল থেকে বলা হচ্ছে ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ

৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



কাপ কথা

বিশ্বকাপের প্রথম ট্রফি জুলে রিম

জুলে রিমে

একেবারে শুরুতে কাপের নাম রাখা হয় ‘ভিক্টোরি’। পরে ফিফার সাবেক প্রেসিডেন্ট জুলে রিমের নামে নামকরণ করা হয়। ফরাসি ভাস্কর আবেল লেফলয়োর প্রথম ট্রফিটির নকশা করেন। গ্রিক পুরাণের বিজয়ের দেবী নাইকির আদলে বানানো হয় ওটা। ট্রফিতে দেবীকে একটি দশ কোনাবিশিষ্ট কাপ হাতে দেখা যায়। সোনায় মোড়ানো রুপা দিয়ে তৈরি কাপটির ওজন ছিল ৩.৮ কেজি। ট্রফিটি লাপিস লাযুলির নামের একটি মূল্যবান নীল পাথরের ভিতের ওপর দাঁড় করানো ছিল। তাই এটিকে ‘সোনালি দেবী’ নামেও ডাকা হতো।

১৯৩৮ সালে প্রথম জুলে রিমে জেতে উরুগুয়ে। কাপটির নিচের দিকের সোনালি ফলকের চারপাশে ১৯৩০ থেকে ১৯৭০ পর্যন্ত বিশ্বকাপজয়ী দেশগুলোর নাম খোদাই করা আছে। দেশগুলো হলো—উরুগুয়ে (১৯৩০, ১৯৫০), ইতালি (১৯৩৪, ১৯৩৮), জার্মানি (১৯৫৪), ইংল্যান্ড (১৯৬৬) ও ব্রাজিল (১৯৫৮, ১৯৬২, ১৯৭০)। ১৯৭০ সালের জুনে মেক্সিকোতে তৃতীয় বিশ্বকাপ জেতে ব্রাজিল। ওই সময় ফিফার নিয়মানুসারে জুলে রিমে ট্রফিটা আজীবনের জন্য নিজেদের করে নেয় তারা। অঘটন ঘটে ১৯৮৩ সালে। ব্রাজিলের সংগ্রহশালা থেকে চুরি হয় কাপটি।

 

নতুন ট্রফি

১৯৭০ সালে নতুন ট্রফি বানানোর উদ্যোগ নেয় ফিফা। ১৯৭১ সালে সাত দেশের ভাস্কররা ৫৩টি নকশা জমা দেন। ট্রফির বর্তমান নকশাকার কারিগর সিলিভও গাজ্জানিগা জমা দিয়েছিলেন দুটি ডিজাইন। প্রথম ডিজাইনটিই মনঃপূত হয় ফিফার। ট্রফির নাম দেওয়া হয় ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফি। ইতালির স্টাবেলিমেন্টো আর্টিসটিকো বেরতনি কম্পানি এটি তৈরি করে। ১৯৭৪ সালে উন্মুক্ত করা হয় ট্রফিটি। নতুন ট্রফিটি ছিল তুলনামূলকভাবে ভারী। পাঁচ কেজি ওজনের ১৮ ক্যারেট স্বর্ণ আছে ওতে। ওজন ৬.১ কেজি এবং উচ্চতা ৩৬.৮ সেন্টিমিটার। ট্রফির বেইসমেন্টের ব্যাস ১৩ সেন্টিমিটার। যা দুই স্তরের ম্যালাসাইট (অলংকারে ব্যবহৃত সবুজ পাথর) দ্বারা আবৃত। এটি দুই স্তর সবুজ ফুটবল মাঠের প্রতীক। ওপরের দিকে দুটি মানুষের অবয়ব দেখা যায়। যারা গোলাকার পৃথিবীকে ধরে রেখেছে। বর্তমান ট্রফির মেয়াদ ২০৩৮ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। কারণ বেদিতে ১৭ চ্যাম্পিয়নের নাম লেখার জায়গা রয়েছে। নতুন কাপ নেওয়া দলগুলো হলো—জার্মানি (১৯৭৪, ১৯৯০, ২০১৪), আর্জেন্টিনা (১৯৭৮, ১৯৮৬), ইতালি (১৯৮২, ২০০৬), ব্রাজিল (১৯৯৪, ২০০২), ফ্রান্স ১৯৯৮, স্পেন ২০১০।

—মাহমুদুল হাসান

গ্রাফিকস : সমরেন্দ্র সুর বাপী প্রচ্ছদ : দেওয়ান আতিকুর রহমান



মন্তব্য