kalerkantho


বিশ্বকাপ ২০১৮

তাঁদের অন্য গোল

গোল দেওয়াই তাঁদের একমাত্র ‘গোল’ ছিল না কখনো। নেমে পড়েছেন মানবতার সেবায়ও। এই তালিকায় এগিয়ে থাকা কয়েকজনের কথা জানাচ্ছেন নাঈম সিনহা

৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



তাঁদের অন্য গোল

তালিকায় সবচেয়ে এগিয়ে সিআর-সেভেন ওরফে রোনালডো

সালাহ

মিসরের গ্রামের ছেলে মোহাম্মদ সালাহ এখন খেলছেন লিভারপুলে। সপ্তাহে বেতন ৯০ হাজার পাউন্ড। তবে ভুলে যাননি নিজের গ্রামের কথা। প্রতি মাসে সেখানকার দুস্থদের জন্য দান করেন সাড়ে তিন হাজার পাউন্ড। স্থানীয় টানটা মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক সরঞ্জাম কেনার জন্য দিয়েছেন ৫০ হাজার ইউরো। নিজ খরচে বানাচ্ছেন হাসপাতাল। গ্রামে কারো বিয়ে হলেও বিশেষ উপহার থাকে সালাহর পক্ষ থেকে। শেষ মুহূর্তে গোল করে মিসরকে বিশ্বকাপে আসার সুযোগ করে দিয়েছিলেন সালাহ। ওই সময় মিসরের ব্যবসায়ী মামদুহ আব্বাস তার জন্য মোটা অংকের পুরস্কার ঘোষণা করেন। কিন্তু পুরস্কারের পরিবর্তে নিজের গ্রামের জন্য সহায়তা চান সালাহ।    

মেসি

ইউনিসেফের হয়ে নানা চ্যারিটেবল কাজের জন্য বিশেষ সুনাম রয়েছে মেসির। বাংলাদেশ, নেপাল, ইন্দোনেশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের শিশুদের শিক্ষার জন্য কাজ করছেন তিনি। তৈরি করেছেন মেসি ফাউন্ডেশন। যা বিভিন্ন দাতব্য সংস্থাকে অর্থ সাহায্য করে। মেসি ফাউন্ডেশন থেকে নিয়মিত সহায়তা পাচ্ছে আর্জেন্টিনা ও স্পেনের বিভিন্ন চিকিত্সা গবেষণা সংস্থা। এ ছাড়া মেসি যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার শিশুদের শিক্ষার জন্যও বড় অঙ্কের অর্থ ব্যয় করেছেন। যা দিয়ে এক হাজার ৬০০ শিশু আবারও স্কুলে ফিরে যেতে পারবে। স্পেনের দুস্থ শিশুদের জন্য মেসি এক দফায় সাড়ে তিন লাখ ইউরো দিয়েছিলেন।

 

নেইমার

দুস্থদের দানে পিছিয়ে নেই নেইমার জুনিয়র। তাঁর ওয়েভস অব ওয়াটার বা জলের ঢেউ নামে একটি প্রজেক্টের কারণে ব্রাজিলের বিপুল পরিমাণ মানুষ বিশুদ্ধ পানি পাচ্ছে। দরিদ্র মানুষদের জন্য একবার তিনি প্রায় ৮৫ হাজার ইউরো সংগ্রহ করে দেন। এ ছাড়া নিয়মিত দরিদ্রদের জন্য তহবিল সংগ্রহ করতে অংশ নেন বিভিন্ন চ্যারিটি খেলায়।

 

মাইকেল এসিয়েন

আফ্রিকার ঘানার মিডফিল্ডার মাইকেল এসিয়েন। খেলেছেন চেলসি, এসি মিলান, রিয়াল মাদ্রিদের মতো বড় ক্লাবে। দুর্দান্ত খেলার পাশাপাশি দাঁড়িয়েছেন দুস্থদের পাশে। তার গড়ে তোলা মাইকেল এসিয়েন ফাউন্ডেশন মৌলিক চাহিদা পূরণ করছে ঘানার ওয়েতি বাকু এলাকার বহু লোকের। তাঁর ফাউন্ডেশন চিকিত্সা, শিক্ষা, লাইব্রেরিসহ বিভিন্ন সেবা দিচ্ছে। তাঁর সঙ্গে কাজ করছেন স্যামুয়েল ইতো, ফার্নান্দো তরেস, ওজিল, বেকহ্যামের মতো তারকা ফুটবলাররাও।

দিদিয়ের দ্রগবা

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ১০০ গোল করা প্রথম আফ্রিকান ফুটবলার দিদিয়ের দ্রগবা। নিজ দেশ আইভরি কোস্টের হয়েও দেখিয়েছেন ফুটবলের জাদু। চেলসির হয়ে ১০ ফাইনালে দিয়েছেন ১০ গোল। মানুষের জন্য কাজ করতে গিয়ে দেখিয়েছেন উদারতার পরিচয়। ২০০৯ সালে নিজ শহর আবিদজানের একটি হাসপাতাল সংস্কারের জন্য দিয়েছেন ৩০ লাখ ডলার। যা তিনি আয় করেছিলেন পেপসির একটি বিজ্ঞাপন করে।

 

ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো

শুধু গোল নয়, ২০১৫ থেকে এখন পর্যন্ত দানের তালিকায়ও এগিয়ে আছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো। আর তা শুধু ফুটবলার হিসেবে নয়, সব খেলোয়াড়ের তালিকায়ই সবার ওপরে রোনালডো। পর্তুগালের এই স্ট্রাইকার ২০১৬ সালে তাঁর চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতা ছয় লাখ ইউরো দান করে দিয়েছিলেন। ক্যান্সার গবেষণায় দান করেছেন এক লাখ ১৫ হাজার ইউরো। এ ছাড়া ২০১৫ সালে নেপালের ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যে দিয়েছিলেন ৫৫ লাখ পাউন্ড। মাত্র ১০ বছরের এক খুদে ভক্তের মস্তিষ্কের অস্ত্রোপচারে দিয়েছিলেন প্রায় ৮৩ হাজার ইউরো।

 

 



মন্তব্য