kalerkantho


বিশ্বসাহিত্য

নাওমি অল্ডারম্যানের বেইলিস জয়

১৪ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০



নাওমি অল্ডারম্যানের বেইলিস জয়

ক্ষমতা কী? ক্ষমতা কার আছে? ক্ষমতা কিভাবে অর্জন করতে হয় এবং ক্ষমতা থাকলে তা দিয়ে মানুষ কী করে? একজন ক্ষমতাবান মানুষ কত দিন ক্ষমতার অপব্যবহার না-করে থাকতে পারে—এমনই বহু প্রশ্ন সামনে রেখে নাওমি অল্ডারম্যান লিখেছেন তাঁর ‘দ্য পাওয়ার’ উপন্যাসটি। বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির এই বইয়ে এমন এক সমাজের চিত্র আঁকা হয়েছে, যে সমাজের নারীরা এক অমিতশক্তির অধিকারী হয় যে তারা মুহূর্তেই যেকোনো ধর্ষকামী পুরুষকে স্পর্শের মাধ্যমে ইলেকট্রিক শক দিয়ে মেরে ফেলতে পারে।

বইটি নাওমিকে এনে দিয়েছে এ বছরের যুক্তরাজ্যের মর্যাদাপূর্ণ ‘বেইলিস উইমেনস প্রাইজ’। ৩০ হাজার পাউন্ড অর্থমূল্যের এ পুরস্কার দেওয়া হয় কেবল নারী লেখকদের। লন্ডনে বেড়ে ওঠা নাওমির প্রথম উপন্যাস ‘ডিসঅবিডিয়েন্স’ ২০০৬ সালে নতুন লেখকদের জন্য প্রদত্ত অরেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড জয় করে। উপন্যাসটি অবলম্বনে পরে চলচ্চিত্রও নির্মিত হয়। ‘দ্য লেসনস’ ও ‘দ্য লায়ারস গসপেল’ নামের আরো দুটি বই রয়েছে তাঁর। এ বছরের বেইলিস উইমেনস প্রাইজের জন্য মনোনীত বইয়ের সংক্ষিপ্ত তালিকার অন্য বইগুলো ছিল—আয়োবামি আদেবায়োর ‘স্টেই উইথ মি’, লিন্ডা গ্রান্টের ‘দ্য ডার্ক সার্কেল’, সি ই মরগানের ‘দ্য স্পোর্ট অব কিংস’, গোয়েন্ডোলিন রিলের ‘ফার্স্ট লাভ’ এবং ম্যাডেলিন থিয়েনের ‘ডু নট সে উই হ্যাভ নাথিং’।


মন্তব্য