kalerkantho

কবি

কামাল মাহমুদ

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



যখন সে চোখ মেলে তাকায় পূর্ণপ্রাণ

ঘুম ভেঙে সূর্য ওঠে

কমলা কামিজে ভোর হুড়মুড় করে ঢুকে পড়ে তার ঘরে।

যখন সে মুখ তোলে

জোড়া খাট উঠে বসে, ক্ষুধা লাগে নেভানো চুলোর

সকাল সংবাদ দেয়

            ঘরে-পরে প্রয়োজন আনাজগুলোর।

 

এখন বাজারে যাও

চাল আনো ডাল আনো, নুন তেল তরকারি...

খুনসুটি পরে হবে

চুমুটুমু ওই বেলা

এই এক রোগ লোকটার—

            বোঝে না যে কখন কী দরকারি!

সকালে দুপুরের ক্ষুধা

কামনা-বাসনা যত

রাতে ষোলোকলা আলো-আঁধারের তরলে-গরলে

কী প্রকারে চার ষোলো হয়ে ওঠে

            তার বিশারদ হতে সে জানে না।

 

সাদা পৃষ্ঠায় স্বপ্ন আঁকে

সুনীল শূন্যে স্বপ্ন দেখে

স্বপ্ন বোনে সবুজ মাঠে—

জলস্থলে অন্তরীক্ষে স্বপ্ন ভাঙে তিন ভুবনে

                        মণিমুক্তার হাটে।

চুলো নিভে থাকে

বাসনকোসন বাজে ঝনঝন ঝনঝন

জোড়া খাট আগুনের দোলনা দোলে

 

সে তার স্বপ্নের ভাঙা টুকরোগুলো কুড়োতে থাকে...


মন্তব্য