kalerkantho


ব্যাংকে রেড ইন্ডিয়ান

মো. সাখাওয়াত হোসেন

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ব্যাংকে রেড ইন্ডিয়ান

একজন রেড ইন্ডিয়ান জীবনে প্রথমবারের মতো ব্যাংকে এলো।

‘কী চাই?’ বদরাগী ম্যানেজার চশমার ফাঁক দিয়ে জিজ্ঞাসা করল।

‘আমি ধার নিতে চাই। ’

‘কী কাজে?’ কর্কশ স্বর ম্যানেজারের যেন কাক ডাকছে।

‘স্বর্ণ খুঁজতে যাব। ’

‘সিকিউরিটি হিসেবে কী রাখবেন?’ স্বর কিছুটা নরম হলো ম্যানেজারের।

‘সিকিউরিটি বুঝি না। ’

‘আমরা যে আপনাকে অর্থ দেব, এর পরিবর্তে কিছু বন্ধক রাখতে হবে। যেমন বাড়ি, গাড়ি। ’

‘নাই। ’

‘কী আছে?’

‘একটা ঘোড়া আছে।

কালো ঘোড়া। ’

‘আরে দূর। গাধা-ঘোড়ায় হবে না। ’

‘আমার ঘোড়া নিয়ে এইভাবে কেউ বলে না। ’

‘দেখি তোমার ঘোড়া। ’ রেড ইন্ডিয়ানের কণ্ঠ শুনে ম্যানেজার বলল।

বাইরে এসে ব্যাংকের ম্যানেজার ঘোড়া দেখে মত পাল্টাল।

বিশাল এক ঘোড়া। রাজকীয় ভাবসাব।

‘ঠিক আছে, রাখলাম তোমার ঘোড়া। ’

ধার নিয়ে বিদায় নিল রেড ইন্ডিয়ান।

৪৫ দিন পর ব্যাংকে ফিরে এলো সে। কাঁধে এক বিশাল পোঁটলা।

ম্যানেজার চশমার ফাঁক দিয়ে তাকিয়ে বলল, ‘কী অবস্থা?’

‘ভালো অবস্থা। ’ এই বলে ব্যাগটা টেবিলের ওপর রেখে ধার নেওয়া ডলার গুনে দিল।

ব্যাগের ভেতরে উঁকি দিয়ে দেখে চোখ ছানাবড়া হয়ে গেল ম্যানেজারের। স্তরে স্তরে বান্ডিল সাজানো।

‘আমার ঘোড়া?’

‘হ্যাঁ, ঘোড়া তো পাবেই। আচ্ছা, বাকি টাকা দিয়ে করবে কী?’ ম্যানেজার প্রশ্ন করল।

‘আমাদের সর্দারের কাছে জমা রাখব। ’

‘এখানেই অ্যাকাউন্ট খুলে রাখো না। ’

‘অ্যাকাউন্ট বুঝি না। ’

‘অ্যাকাউন্ট মানে হলো, আমাদের ব্যাংকে একটা হিসাব খুলে এখানে টাকা জমা রাখবে। তোমার সব টাকা এখানে থাকবে। ’

‘সিকিউরিটি কী দিবেন?’ শান্ত স্বরে প্রশ্ন রেড ইন্ডিয়ানের।


মন্তব্য