kalerkantho


জয়তু বিসিএস

আফরীন সুমু

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



জয়তু বিসিএস

আমি জানতাম, অনার্সের পর সবাই বিসিএসের চিন্তা করে। এক বান্ধবীর কাছে গিয়ে সেই ধারণা পাল্টাতে হলো। তার রুমে গিয়ে দেখি, নিউ ফার্স্ট ইয়ারের এক জুনিয়র মেয়ে ডিকশনারি সাইজের বই খুব মনোযোগ দিয়ে পড়ছে। কাছে গিয়ে দেখি, সাধারণ জ্ঞানের বই। অনার্সে সাধারণ জ্ঞান যুক্ত করেছে কি না নিশ্চিত হওয়ার জন্য জিজ্ঞেস করে জানলাম, ওটা বিসিএসের বই। সে প্রথম বর্ষ থেকেই বিসিএসের প্রস্তুতি নিচ্ছে। আমি ভালো করে ওর নামধাম জেনে নিলাম। ভবিষ্যতে কাজে লাগতে পারে। প্রথম বর্ষ থেকেই বিসিএস প্রস্তুতিতে নির্ঘাত ক্যাডার। আরেক দিন নীলক্ষেতে আমার ভিরমি খাওয়ার দশা। এসএসসি পরীক্ষার্থী এক ছোট বোনের সঙ্গে দেখা। সে এসেছে বিসিএস প্রস্তুতি গাইড কিনতে। সামনে তার এসএসসি পরীক্ষা। আমার স্বল্পবুদ্ধিসম্পন্ন মস্তিষ্ক ভেবে বের করতে পারল না যে এসএসসি পরীক্ষার সঙ্গে বিসিএসের কী সম্পর্ক? আজকাল এসএসসিতে কি বিসিএস গাইড থেকে প্রশ্ন আসে? নাকি বিসিএসবিষয়ক নতুন চ্যাপ্টার যুক্ত হয়েছে? ছোটবেলায় ক্লাস ফাইভ পর্যন্ত সাধারণ জ্ঞান ছিল। অনেক দিন হলো সেটা উঠে গেছে। তা কি আবার বিসিএসরূপে ফিরে এলো নাকি? আমি ভয়ে ভয়ে জিজ্ঞেস করেই ফেললাম। সে জানাল, পরীক্ষা শেষ করেই বিসিএস প্রস্তুতি নিতে শুরু করবে। তখন বই কেনার মতো কাজেও সে সময় নষ্ট করতে চায় না। তাই এখনই কিনে ফেলেছে। এ পর্যন্ত শুনে আমি পালিয়ে বাঁচলাম। দাঁড়িয়ে থাকলে না জানি আরো কী শুনতে হয়।

বান্ধবী ডালিয়ার খুব মন খারাপ। ইন্টারভিউতে পাস করেনি। পাঠক ভুল ভাবতে পারেন। এ ইন্টারভিউ কোনো করপোরেট প্রতিষ্ঠানে চাকরির ইন্টারভিউ নয়। টিউশনিতে জয়েন করার জন্য স্টুডেন্টের মা-বাবার কাছে ইন্টারভিউ। তাকে বিগত বছরের বিসিএসের প্রশ্ন থেকে বেশ কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞেস করা হয়েছে। সে কয়েকটি উত্তর ভুল করেছে। তাদের ছেলে বড় হয়ে ভবিষ্যতে বিসিএস দেবে। যে শিক্ষক নিজেই বিসিএস প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেন না, তিনি তাঁদের ছেলেকে কী করে ভবিষ্যতে বিসিএসের উপযুক্ত করে তুলবেন? আমি সেখান থেকেও পালিয়ে বাঁচলাম। হাত খালি যাচ্ছে, মনে মনে একটি টিউশনির কথা ভাবছিলাম। এসব শোনার পর সেই ভাবনা বাদ দিলাম। ডালিয়া বলেছিল, টিউশনির ইন্টারভিউ দিতে গেলে যেন কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সটা ভালোভাবে দেখে যাই। বেশির ভাগ প্রশ্ন ওখান থেকেই আসে। কী দরকার বাপু গচ্চা দিয়ে? এর চেয়ে টাকা বিশটা হাতে থাক।

এবার বলি আমার রুমের অবস্থা। বড় আপুদের মধ্যে পাঁচজনই বিসিএস দেবেন। তাঁরা অনার্স পাস করেছেন বছরখানেক হলো। দু-একজন ছাড়া পড়ালেখা তাঁদের কারো ধাতে নেই। তবে পড়ালেখা যা-ই হোক, তাঁরা ভালো লুডু খেলেন। সকাল-বিকাল খুব ভাবেন, সামনে বিসিএস, পড়ায় মনোযোগ দেওয়া দরকার। এই চিন্তায় পড়া হয় না। সুতরাং চিন্তা দূর করতে তাঁরা লুডুর কোর্ট বিছিয়ে বসেন। জাস্ট এক ম্যাচ খেলে একটু রিফ্রেশ হয়ে পড়তে বসবেন। কিন্তু হেরে যাওয়া পার্টি এক ম্যাচে সন্তুষ্ট হয় না। চলে ম্যাচের পর ম্যাচ। হার-জিত, ছক্কা-পুটের দাপট। খেলতে খেলতে পরিশ্রান্ত হয়ে তাঁরা ভাবেন, আজ আর নয়। আমাদের শেফালী আপু, যিনি বিসিএস নিয়ে সবচেয়ে বেশি চিন্তিত, তিনি বলেন—কাল থেকে এমন পড়াটাই দেব...। সেই কাল আর আসে না। তবে যাঁর যাঁর বাড়ি থেকে টাকা আসে, সাধ্যমতো ভালো খাবারদাবার আসে। এ সময় বাড়তি পুষ্টির দরকার। মা-বাবা খোঁজ নেন মেয়ে ডিম-দুধ ঠিকমতো খাচ্ছে কি না।

এক রুমমেট মার্কেটে যাচ্ছে। উদ্দেশ্য কিছু ভালো ড্রেস ও কসমেটিকস কেনা। বিসিএস পরীক্ষা সন্নিকটে। সামনে-পেছনে যদি দু-একটি ব্রিলিয়ান্ট ছেলে পড়ে, তবে তো কথাই নেই। কোনোভাবে প্রিলি উতরে গেলেই হবে। রিটেনে পড়ার কমতি রাখবে না। একটু সুন্দর করে সেজেগুজে গেলে বাড়তি অ্যাডভানটেজ পাওয়া যেতে পারে। আমি বলি, আপু আপনি সামনে-পেছনে দেখে দেখে পরীক্ষা দেবেন, গার্ড-টিচাররা কি বসে বসে সেমাই খাবেন?

আমার কথায় তিনি কিঞ্চিত্ বিরক্ত হলেন। আমি এত বোকা কেন, এ জন্য আফসোস করলেন। আরেকবার বুঝিয়ে দিলেন রূপচর্চা ও সাজগোজের গুরুত্ব। আমি ভালোভাবে না বুঝলেও চুপ করে থাকলাম। আবার কী না কী বলে বিপদে পড়ি। একজন দেখি বিউটি পার্লার থেকে ফেসিয়াল করে এসেছেন। বিসিএস পরীক্ষা কি না! আমাকে জিজ্ঞেস করলেন, তার চেহারা কতখানি উজ্জ্বল হয়েছে। আমি এসব ভালো বুঝি না। তবু মাথা ঝাঁকিয়ে অভিজ্ঞ ভঙ্গিতে বললাম, ‘আপনার চেহারা খুবই উজ্জ্বল হয়েছে।’ কী দরকার ঝামেলায় যাওয়ার। 

কাল বিসিএস পরীক্ষা। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে, ঈদ লেগেছে। আজ চাঁদরাত। চারদিকে সাজসাজরব। সবাই সবার খোঁজখবর নিচ্ছে...কে কী ড্রেস পরবে, কে কিভাবে যাবে—সেসব ঠিক হচ্ছে। তবে এত কিছুর ভিড়ে সংখ্যালঘু আসল পড়ুয়ার দল পড়ছে ঠিকই। এরা মুখস্থ করছে, লিখছে, টুকলিফাই করছে। আমি ধন্দে পড়ে গেলাম। আমাকেও তো বিসিএস দিতে হবে। মান-ইজ্জতের প্রশ্ন, দিতেই হবে। না হলে কেউ যদি জিজ্ঞেস করে, তাহলে বলব কী? কিন্তু কোন দলে যাব? পড়ুয়াদের দলে, নাকি বিসিএস নিয়ে চিন্তা করুয়াদের দলে? পড়ুয়াদের দলেও যদি যাই, এ জনমে বিসিএস হবে তো?
 


মন্তব্য