kalerkantho


ফেসবুক থেকে পাওয়া

গল্পটা অসমাপ্ত হয়ে রইল

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



গল্পটা অসমাপ্ত হয়ে রইল

সেদিন সকালে ঘুম থেকে তাড়াতাড়ি উঠেছিলাম। কারণ, সকাল ৭টায় আবার কোচিং আছে।

কোচিং করে বাসায় ফেরার কয়েক মিনিট পর এক বন্ধু আমায় ফোন দিল। ফোন দিয়ে বলে যে আমি তোর বাসার সামনে দাঁড়িয়ে আছি। তুই তাড়াতাড়ি চলে আয়। তারপর আমি বাসা থেকে বের হয়ে গেলাম। প্রথমে মনে করেছিলাম, আমার সঙ্গে তার কিছু দরকার সে জন্য এসেছে। কিন্তু যখন গেলাম তখন সে বলল, আজকে নাকি তাকে ট্রিট দিতে হবে। আসলে কয়েক দিন আগে আমার জন্মদিন ছিল তো তাই। তারপর তাকে নিয়ে চললাম এক রেস্টুরেন্টে। রেস্টুরেন্টে বসে খাবার অর্ডার দিলাম। অর্ডার দিয়ে আমরা গল্প করছিলাম। ঠিক তখনই দুই মেয়ে এসে বসল আমাদের থেকে একটু দূরের এক টেবিলে। আমি আমার বন্ধুর সঙ্গে কথা বলার সময় হঠাৎ চোখ ফিরিয়ে দেখি চশমা পরা একটি মেয়ে আমার দিকে তাকিয়ে আছে। কী অপূর্ব লাগছিল তাকে, লিখে বোঝানোর মতো না। আমি কিছুটা হতভম্ভ হয়ে আবার বন্ধুর সঙ্গে আলাপ করতে থাকি। তখন আবার চেয়ে দেখি মেয়েটি আমার দিকে অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে। আমার তখন কি হয়েছিল আমি নিজেই জানি না। আমিও তার দিকে অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে রইলাম। তারপর হঠাৎ আমার কানে মায়ের কণ্ঠ ভেসে উঠল। তারপর আর কি ঘুমটা ভেঙে গেল। আর আমার গল্পটা অসমাপ্ত হয়ে রইল।  

 

অর্ণব দাশ অনিক, এমসি কলেজ, সিলেট।


মন্তব্য