kalerkantho


ফেসবুক থেকে পাওয়া

আজও তোমার প্রতীক্ষায় আছি

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



মেয়েটির সঙ্গে আমার ফেসবুকে পরিচয়। নাম নির্জনে নিভৃতে অনামিকা।

প্রায় প্রতিদিনই ওর সঙ্গে টুকটাক কথা হতো। এভাবে চলতে চলতে দুজন দুজনার খুব ক্লোজ হয়ে যাই। একসময় লক্ষ করলাম, আমি ওকে খুব বেশি মিস করছি। আমার অনুভবে, শয়নে-স্বপনে-জাগরণে সে বিরাজ করছে। আচ্ছা, সেও কি আমায় এভাবে মিস করছে? নাহ, কিচ্ছু ভালো লাগছে না। ওকে জিজ্ঞেস করলে কেমন হয়। হুম, গুড আইডিয়া। ওকে জিজ্ঞেস করতে হবে।

পরদিন খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠতে যাব এমন সময় অনামিকার ফোন।

রিসিভ করতেই ওপাশ থেকে ‘আই লাভ ইউ’ বলেই ফোনটা রেখে দিল। বোধ হয় লজ্জা পেয়েছে। আমি কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে গেলাম। আরে, এ কী করে সম্ভব! এ তো দেখছি মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি! তবে কি আমার মতো সেও আমায় নিয়ে ভাবে?

মনে মনে খুব খুশি লাগছিল আমার। পরে আমি ওকে ফোন দিই। ওর সঙ্গে এ বিষয়ে বিস্তারিত কথা বলে নিই। বুঝলাম মেয়েটি সত্যিই আমাকে ভালোবাসে। এরপর একদিন ওকে বললাম, চলো দেখা করি। কোথাও থেকে ঘুরে আসি। সে রাজি হয়ে যায়। দুজন পার্কে গিয়ে দেখা করি। পাশাপাশি হাত ধরে চলি। অনেক গল্প করি, অতীত, বর্তমান, ভবিষ্যৎ নিয়ে। বিকেলের দিকে রেস্টুরেন্টে দুজন খাওয়াদাওয়া সেরে নিই।

এর পরও অনেক কথা হয় আমাদের। কিন্তু একদিন হঠাৎ করেই দেখি ওর মধ্যে অনেক পরিবর্তন এসেছে। আমার সঙ্গে ভালোভাবে কথা বলে না। কথা শেষ না হতেই ফোন রেখে দেয়, সুইচ অফ করে রাখে। আমিও অনেক চেষ্টা করি, আবার কানেক্ট পাওয়ার; কিন্তু না, পাই না। এরপর অনেক বছর চলে গেল অনামিকার কোনো খোঁজ নেই।

জানি না কেন সে এভাবে আমায় একা ফেলে চলে গেল। আজও জানতে ইচ্ছা করে, কোন ভুলে এভাবে আমায় নিঃসঙ্গতায় ফেলে চলে গেল। আজও তোমার প্রতীক্ষায় দুহাত বাড়িয়ে দাঁড়িয়ে আছি।

 

রাকিবুল প্রিয়, রূপসা, সিরাজগঞ্জ।


মন্তব্য