kalerkantho


এবার সিনেমা

বিশেষ দিনের নাটক-টেলিফিল্মেই তাঁকে বেশি দেখা যায়। এবার ঈদেও প্রশংসিত হয়েছেন। অভিনয় করছেন ফেলুদা সিরিজেও। শিগগিরই তাঁকে দেখা যাবে মঞ্চে ও চলচ্চিত্রে। শার্লিন ফারজানাকে নিয়ে লিখেছেন মীর রাকিব হাসান। ছবি তুলেছেন শাহরিয়ার অর্ণব

অন্যান্য   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



এবার সিনেমা

তাঁর বিরুদ্ধে দর্শকের অভিযোগ, শুধু বিশেষ দিনের নাটক-টেলিফিল্মে অভিনয় করেন। কেন তাঁকে নিয়মিত দেখা যায় না? একে একে অনেক কারণ জানালেন।

কিছুদিন আগে মাকে হারিয়েছেন। এই সময়টায় বাবাকে সময় দেওয়াই বড় কর্তব্য মনে করেন তিনি। সারা বছর অভিনয় করার পক্ষপাতীও নন তিনি। তাতে কী হয়? ‘আমি গুছিয়ে কিছু ভালো কাজ করতে চাই। সারা বছর অভিনয় করলে সেটা সম্ভব হয় না। ঈদের সময় দর্শকদের যেমন বাড়তি নজর থাকে, তেমনি নির্মাতাদেরও। ’

বাবাকে সময় দেওয়ার পাশাপাশি ঈদের নাটকে চোখ রেখেছেন। ‘এবারের ঈদে অনেক ধরনের চরিত্রে অভিনয় করেছি। রোমান্টিক গল্পেই তো আমাকে বেশি দেখা যায়।

এই সীমাবদ্ধতার মধ্যেও কিছু ব্যতিক্রমী নাটক হাতে এসেছে। সবার কাছ থেকেই প্রশংসা পেয়েছি। অনেকেই বলছেন, আমার অভিনয়ে ম্যাচিউরিটি এসেছে। নিজের ভালো তো আসলে নিজে বুঝতে পারি না। বাইরের মানুষের সমলোচনা কিংবা প্রশংসা শুনে বুঝি’—বললেন শার্লিন।

আছেন বাংলাদেশি ফেলুদা সিরিজেও। প্রথম সিজনে করছেন ‘শেয়াল দেবতা রহস্য’। ফেলুদার ভূমিকায় পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। এখানে শার্লিনের চরিত্রের নাম মুনমুন। এটি নির্মাণ করছেন অনিরুদ্ধ। শার্লিন বলেন, “সত্যজিত্ রায়ের ‘ফেলুদা’ সিরিজের কাহিনি নিয়ে বাংলাদেশে এবারই প্রথম কাজ হচ্ছে। সেখানে আমি আছি, এটা ভীষণ আনন্দের। চেষ্টা করছি যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে। বাকিটা দর্শক বলতে পারবে। ”

ফেলুদায় কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন? ‘আসলে প্রতিটি কাজই আমার কাছে সমান। বাংলাদেশের বড় বড় অভিনয়শিল্পীর সঙ্গে অভিনয় করেছি, তাই খুব একটা সমস্যা হয়নি। পরমব্রত নয়, আমার কাছে বরং তারিক আনাম খান স্যারদের সঙ্গে কাজ করাটাই কঠিন লাগে। তবে পরমব্রতসহ পশ্চিমবঙ্গের যাঁরা আছেন, তাঁরা বেশ গোছালো। পরমব্রত সহজভাবে সব কিছু বুঝিয়ে দেয়’—বললেন শার্লিন।

‘লোটা কম্বল’-এর অনেক দিন পর আবারও ধারাবাহিকে দেখা যাবে। সেটাও বিশেষ অনুরোধে। নজরুল ইসলাম রাজুর ধারাবাহিক ‘ঘরে এবং বাহিরে’র মূল চরিত্রে তিনি। বিপরীতে অপূর্ব ও নাঈম। বড় ভাইয়ের চরিত্রে শহীদুজ্জামান সেলিম অভিনয় করবেন। লিখছেন মাতিয়া বানু শুকু। এখনই সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছেন,  এই সিরিয়ালের পর আর সিরিয়াল করবেন না। টানা দুই মাস সিরিয়ালটিতে সময় দিয়েছেন। এরপর আবার বিরতি। তবে এরই মধ্যে ভালোবাসা দিবসের নাটকের প্রস্তাব পেতে শুরু করেছেন। ভালোবাসা দিবসের নাটক দিয়েই ফিরবেন।

বিরতি নেওয়ার কারণও আছে। ২০১০ সালে ‘জাগো’ সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন। এবার নতুন করে চলচ্চিত্রে নামতে যাচ্ছেন। পশ্চিমবঙ্গের একটি সিনেমায় অভিনয়ের কথা প্রায় চূড়ান্ত। এখনই নাম প্রকাশ করতে চাইছেন না। আর বাংলাদেশের একজন নাট্য নির্মাতার সিনেমায়ও অভিনয়ের কথা হয়েছে। শিগগিরই খবরটা জানাতে পারবেন। অভিনয়ে নিজেকে আরো পারদর্শী করে তুলতে মঞ্চে যোগ দেওয়ার কথা ভাবছেন। তারিক আনাম খানের নাট্যদল নাট্যকেন্দ্রে যোগ দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। তবে ঠিক বলতে পারছেন না কবে থেকে দলের সঙ্গে নিয়মিত পারফরম করতে পারবেন।


মন্তব্য