kalerkantho


খাস জমির বাসিন্দা

কাল মুক্তি পাবে সরোয়ার হোসেনের ‘খাস জমি’। ছবির নায়ক সাইমন সাদিক ও নায়িকা বিপাশা কবিরকে নিয়ে লিখেছেন মীর রাকিব হাসান। ছবি তুলেছেন শুভ্র কান্তি দাস

৯ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



খাস জমির বাসিন্দা

ভূমি কর্মকর্তা সাইমন। ভূমিদস্যুদের হাত থেকে সরকারি জমি উদ্ধার করে ভূমিহীনদের পুনর্বাসন করাই তার লক্ষ্য।

তার গ্রামেরই মেয়ে বিপাশা, যাত্রাপালায় নাচে। ঘটনাক্রমে পরিচয় হয় সাইমন-বিপাশার। ভালোবাসার ছোঁয়ায় বদলে যায় বিপাশার জীবন। অল্প কথায় এই হলো ‘খাস জমি’র গল্প।

৫০টিরও বেশি ছবির আইটেম গানে পারফর্ম করার পর বিপাশা এখন নায়িকা। এটি তাঁর তিন নম্বর ছবি। এই ছবি নিয়ে বিপাশা বলেন, ‘চলচ্চিত্রে এ সময়ে মৌলিক গল্পের খুব অভাব। এই ছবির গল্প একেবারেই মৌলিক। বলতে পারি, দর্শক খুব ভালোভাবে ছবিটাকে গ্রহণ করবে।

’ সাইমনও বিপাশার সঙ্গে একমত—‘জমির ব্যাপার নিয়ে গল্প। আমাদের দেশে বিষয়ভিত্তিক ছবি হয় না বললেই চলে। দেশের প্রান্তিক এলাকার মানুষের একটা কমন সমস্যা খাসজমি নিয়ে। বাস্তবিকভাবে গল্পটা তুলে ধরা হয়েছে। দর্শক নতুন কিছু   পাবে এখানে। ’

শুটিং শুরু হয়েছিল গত নভেম্বরে, এই নভেম্বরে মুক্তি। ছবির বেশির ভাগ শুটিং হয়েছে হোতাপাড়ায়। শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা বললেন বিপাশা, ‘ওখানে ইন্টারনেট, টিভির ব্যবস্থা ছিল না। শুটিংয়ের বাইরে বাকি সময়টা কেটেছে গল্প করে। একটু ভূতুড়ে টাইপ এলাকা। তাই শুটিং শেষে অনেক রাত অবধি গল্প করতাম। ঘুরতেও যেতাম। ’

সাইমনের সঙ্গে নায়িকা হিসেবে বিপাশার প্রথম ছবি ‘খাস জমি’। অভিজ্ঞতা কেমন? ‘আমি তো অভিনয়ে নতুন বললেই চলে। আইটেম গানে ব্যস্ত থাকায় অভিনয়ের খুঁটিনাটি বিষয় এখনো শেখা হয়নি। সাইমন পাশে ছিল বলেই অনেক ক্ষেত্রে উতরাতে পেরেছি। ও আমার ভালো বন্ধুও। একবার ওর কাছে বায়না ধরলাম, রাস্তার পাশের খাবারের দোকানে নিয়ে যেতে। ও কথা রেখেছিল। কিন্তু কথা রাখতে গিয়ে ওকে বিপদেই পড়তে হয়েছে। ওকে দেখে প্রচুর মানুষ জড়ো হয়ে গেল’—বললেন বিপাশা।

সাইমনও প্রশংসা করলেন বিপাশার—‘ও ভালো অভিনেত্রী। ওকে নিয়ে পরিচালকদের আরো ভাবা উচিত। অভিনয়ে তো অনেকেই আসে, নায়িকাও হয়ে যায়। ভালো অভিনেত্রী পাওয়াটা কিন্তু মুশকিল। ওর মধ্যে একটা চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার আছে। কাজে ভীষণ মনোযোগী। ’

বিপাশা বলেন, ‘আমার স্বপ্ন বা লক্ষ্যই ছিল হিরোইন হব। শখের বশেই শুরুতে আইটেম সংয়ে পারফর্ম করলাম। শখটাই পরে প্রফেশন হয়ে যায়। তবে আশা ছাড়িনি। অনেক স্ট্রাগলের পর আজকের জায়গায় এসেছি। পরিচালক-প্রযোজকরা সবাইকে নির্দিষ্ট কোনো ছকে আবদ্ধ করে রাখতে চান। আমার ইচ্ছা ছিল, সঙ্গে কিছু যোগ্যতাও ছিল বলে নায়িকা হতে পেরেছি। ’

নায়িকা বিপাশার আরেকটি ছবি মুক্তির জন্য প্রস্তুত—সৈকত নাসিরের ‘পাষাণ’। ‘খাস জমি’ মুক্তির আগেই সাইমনের বিপরীতে আরেকটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন—সাইমন তারিকের ‘রোড নাম্বার সেভেন’। জানুয়ারিতে শুটিং হওয়ার কথা। সাইমনের হাতেও আছে বেশ কিছু ছবি। মুক্তির অপেক্ষায় আছে সাতটি। আরো বেশ কিছু ছবিতে অভিনয়ের কথা চলছে। ‘ইন্ডাস্ট্রিতে ভালো পরিচালক ও প্রযোজক দরকার। যাঁরা এই সময়কার গল্প নিয়ে সিনেমা নির্মাণ করবেন, ছবি ভালো হলে দর্শক দেখবেই। এটা বারবার প্রমাণিত। আমরাই হয়তো ভালো ছবি দর্শকের কাছে তুলে ধরতে পারি না। আমরা অভিনয় শিল্পীরা চেষ্টা করলেই যে একটা ছবি খুব ভালো বানাতে পারি এমনটা নয় কিন্তু। পরিচালক-প্রযোজকরাই এখানে মুখ্য’— বললেন সাইমন।


মন্তব্য