kalerkantho


ঈদে বাবুর গান

নিজেকে আপাদমস্তক একজন অভিনেতা মনে করেন ফজলুর রহমান বাবু। তবে তাঁর গানের ভক্তও কম নেই। এবার ঈদে প্রকাশিত হচ্ছে তাঁর পাঁচটি নতুন গান। বাবুর গান নিয়ে লিখেছেন আতিফ আতাউর

৭ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ঈদে বাবুর গান

গায়ক বাবুর আবির্ভাব গিয়াস উদ্দিন সেলিমের ‘মনপুরা’য়। ছবিতে অভিনয়ও করেছিলেন তিনি। মঞ্চে অভিনয়ের সুবাদে টুকটাক গাইতে হতো। সেটা জানতেন সেলিম। বাবুকে দিয়ে গাওয়ালেন ‘মনপুরা’র দুটি গান—‘নিথুয়া পাথারে’, ‘সোনাই হায় হায়রে’। প্রথম প্লেব্যাকেই বাজিমাত। এরপর থেকে অভিনেতার নামের পাশে গায়ক পরিচয়টাও যুক্ত হলো।

প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করলেন ‘মনপুরা’র পরেই—‘ইন্দুবালা’। ইন্দুবালা গানটিও শ্রোতাদের মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়ে। এরই ধারাবাহিকতায় করলেন ‘ইন্দুবালা ২’। এবারের ঈদে প্রকাশিত হবে ‘ইন্দুবালা ৩’। বাবু বলেন, ‘প্রথম ইন্দুবালা যখন গাই তখন ভাবিনি এত জনপ্রিয় হবে। পরের অ্যালবামটিও শ্রোতারা সাদরে গ্রহণ করেছে। এখন ইন্দুবালা নিজেই একটা ব্র্যান্ড। সেই ব্র্যান্ড ধরে রাখতেই এবারের অ্যালবাম।’

‘ইন্দুবালা ৩’-এ আছে তিনটি গান। গানের কথা লিখেছেন দেলোয়ার আরজুদা শরফ, সুর ও সংগীতায়োজনে অমিত চ্যাটার্জি। এই অ্যালবামের কোনো বিশেষত্ব? ‘নেই। বিশেষত্ব নিয়ে চিন্তাও করিনি। আমি অভিনেতা, অভিনয়ই আমার ধ্যানজ্ঞান। যদি গায়ক হতাম তাহলে হয়তো বিশেষত্ব নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করতাম। সারা বছরে হাতেগোনা কয়েকটি গান করি, তাও আবার অনুরোধে। এটুকু বলতে পারি, শ্রোতারা আগের বাবুকেই খুঁজে পাবে অ্যালবামে’, বাবুর অকপট জবাব।

ঈদে গানগুলোর ভিডিও প্রকাশিত হবে। তাতে দেখা যাবে বাবুকেও। অভিনয়ের মানুষ বলেই নিজের গানের ভিডিওতে পারফর্ম করতে সমস্যা হয় না তাঁর, ‘নিজের গানের ভিডিওতে অভিব্যক্তিটা ফুটিয়ে তোলা সহজ, ভালোও লাগে করতে। আমার সঙ্গে অন্য মডেলরাও আছেন।’

এই ঈদে বাবুর আরো দুটি গান প্রকাশিত হবে। এর একটি ‘মিছে মায়া’, লিখেছেন সোহেল মাসুদ, সুর অভি আকাশ ও সংগীতে মন। ভিডিও নির্মাণ করেছেন সোহেল রানা বয়াতি। আরেকটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন এ সপ্তাহেই। তবে গানের নাম, গীতিকারের নাম তত্ক্ষণাৎ মনে করতে পারলেন না কিছুতেই। জানালেন, ঈদের আগে এটিরও ভিডিও করা হবে।

গত বছর প্রকাশিত হয়েছিল শিল্পী বিশ্বাসের সঙ্গে দ্বৈত গান ‘আমার মনে আমার প্রেমে নেই কোনো ভেজাল’। ভিডিওতে মডেল হন হিরো আলম। এ নিয়ে বেশ বিব্রত হয়েছিলেন বাবু। বলেন, ‘গানটি করতেই চাইনি। বিশেষ অনুরোধে গাইলাম। পরে শুনি গানটিকে ভাইরাল করার জন্য একটি ভিডিও করা হয়। কার গানে কে মডেল হবে বিষয়টা সংশ্লিষ্টদের বোঝা উচিত।’

প্লেব্যাকেও আছেন। ‘মনপুরা’র পর গেয়েছেন ‘মেয়েটি এখন কোথায় যাবে’, ‘গহীন বালুচর’ ও ‘নুরু মিয়া ও তার বিউটি ড্রাইভার’ ছবিতে। গেয়েছেন কলকাতার ছবি ‘সিতারা’তেও। অভিনয়ের পাশাপাশি ছবির টাইটেল গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। গায়ক বাবুর কথা তারা কিভাবে জেনেছিল? “আমার গানের সঙ্গে কলকাতার অনেকেই পরিচিত। সে কারণেই ‘সিতারা’র টাইটেল গান গাওয়ার প্রস্তাব দেন পরিচালক। ‘সিতারা’ মুক্তি পেলে কলকাতায় আমার গায়ক পরিচিতি আরো জোরালো হবে আশা করি”, বললেন বাবু।

কয়েক দিন পরই ঈদ। অভিনয় নিয়েই এখন ব্যস্ততাটা বেশি। এবারও বেশ কিছু নাটক-টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন। টেলিভিশনের পাশাপাশি কয়েকটি নাটক করেছেন অনলাইন প্ল্যাটফর্মের জন্যও।

গিয়াস উদ্দিন সেলিমের দ্বিতীয় ছবি ‘স্বপ্নজাল’-এ অভিনয় করেও প্রশংসিত হয়েছেন। এই ছবিতে আপনার কণ্ঠে গান নেই কেন? ‘পরিচালক চায়নি। সেলিম সব সময়ই নতুন কিছু করে দেখাতে চায়। এক পথে ও দুবার হাঁটতে চায় না’, বললেন বাবু।

তৌকীর আহমেদের ‘অজ্ঞাতনামা’, ‘হালদা’র পর আছেন এই পরিচালকের নির্মিতব্য ‘ফাগুন হাওয়া’তেও। অভিনয় করে গানচর্চার জন্য সময় পান? বাবু বলেন, ‘ছুটির দিনগুলোতে বাসায় নিয়ম করে রেওয়াজ করতে বসি। যদিও ছুটি পাই খুব কম। এবার ঈদে পাঁচ-ছয় দিনের ছুটি মিলবে। লম্বা একটা সময় পাব গানচর্চা করার। গানচর্চা আমার অবসর যাপনের সঙ্গীও।’


মন্তব্য