kalerkantho


বার্গম্যানের নায়িকারা

হাসনাইন মাহমুদঁ   

১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



লিভ উলম্যান : নরওয়ের এই অভিনেত্রী শুধু বার্গম্যানের প্রিয়তম অভিনেত্রীই ছিলেন না, ছিলেন দীর্ঘ সময়ের প্রেমিকাও। উলম্যানের ক্যারিয়ার জুড়েই রয়েছেন বার্গম্যান। পরিচয়টা হয়েছিল বার্গম্যানের আরেক প্রিয় অভিনেত্রী বিবি অ্যান্ডারসনের মাধ্যমে। স্টকহোমে এক অনুষ্ঠানে উলম্যানকে দেখেই বার্গম্যান বলে ওঠেন, ‘আমি আপনাকে চিনি এবং আপনাকে একটি সিনেমায় চাই।’ পরে অসুস্থ থাকা অবস্থায় লিভ উলম্যান ও বিবি অ্যান্ডারসনের একটি ছবি দেখেই তাঁর মাথায় আসে ‘পারসোনা’। লিখে ফেলেন চিত্রনাট্য। এই চিত্রায়ণের সময়ই প্রেমে পড়েন একে অপরের; যদিও বার্গম্যানের ভাষায় সেটি ছিল, ‘খুবই যন্ত্রণাদায়ক এক  যোগাযোগ’। বার্গম্যানের ছবিতে উলম্যানের চরিত্রগুলোও ছিল যেন শুধু তাঁকে নিয়েই লেখা। লিভ বলেন, ‘আমি কখনোই স্ত্রী কিংবা প্রেমিকার ভূমিকায় অভিনয় করিনি। যা করেছি তা ছিল একান্তই আমার।’ বার্গম্যানের পরিচালনায় ১০টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন উলম্যান। এর মধ্যে ‘প্যাশন অব অ্যানা’, ‘ক্রাইজ অ্যান্ড হুইসপার্স’ ইত্যাদি বিখ্যাত। উলম্যান পরে বার্গম্যানের চিত্রনাট্যে ‘প্রাইভেট কনফেশনস’ ও ‘ফেইথলেস’ নামের দুটি চলচ্চিত্রও পরিচালনা করেছেন।

 

ইনগ্রিড থুলিন : ক্যারিয়ার শুরু করেন ব্যালে নাচে ঝড় তুলে। রয়াল আকাদেমি অব স্টকহোমে তাঁর পারফরম্যান্সের সময় চোখে পড়ে যান বার্গম্যানের। তাঁর পরিচালনায় অভিনয় করেন ৯টি চলচ্চিত্রে। এর মধ্যে ‘ওয়াইল্ড স্ট্রবেরিজ’, ‘দ্য সাইলেন্স’ উল্লেখযোগ্য। ‘দ্য ম্যাজিশিয়ান’-এ থুলিন বেশির ভাগ সময়ই এক কিশোরের বেশে অভিনয় করেন। তাঁর সাজসজ্জা এতটাই নিখুঁত ছিল যে কেউ বিশ্বাসই করতে চাননি।

 

হ্যারিয়েট অ্যান্ডারসন : একবার নাকি এক লিফটে উঠে লিফটচালক কিশোরী হ্যারিয়েটকে দেখেই ভালো লাগে বার্গম্যানের, সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে চলচ্চিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসেন; যদিও অনেক বছর পর এক সাক্ষাত্কারে একে স্রেফ গুজব বলেই উড়িয়ে দেন হ্যারিয়েট। বার্গম্যানের চলচ্চিত্রে হ্যারিয়েট বেশির ভাগ সময়ই নারী শ্রমিক। নিজ অভিনয়দক্ষতা আর সৌন্দর্য দিয়ে সেই চরিত্রের অভিনয়কে তিনি এনে দিয়েছিলেন অন্য রকম এক আবেদন। শ্রমিকের কঠোরতা আর আবেদন মিলেমিশে একাকার হয়ে চলচ্চিত্রকে নিয়ে গিয়েছিল অন্য ভুবনে।

বার্গম্যানের জটিল সম্পর্কগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিলেন হ্যারিয়েট অ্যান্ডারসন। তিনি বলেন, ‘এক দুপুরে ভবিষ্যৎ নিয়ে আলাপ করতে করতে আমরা সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লাম।’ পরে বার্গম্যানের অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টির সমালোচনা করেছেন বহুবার। তাঁর মতে, ‘বার্গম্যান সব সময় নতুন কিছু চাইতেন। কেউ তা দিতে ব্যর্থ হলে কঠোর হয়ে যেতেন।’ ‘স্মাইলস অব আ সামার নাইট’, ‘সামার উইথ মনিকা’ ইত্যাদি হ্যারিয়েটের করা উল্লেখযোগ্য ছবি।

 

বিবি অ্যান্ডারসন : এই অভিনেত্রীদের মধ্যে বার্গম্যানের সবচেয়ে পুরনো সহকর্মী। কিশোরী অবস্থায় বার্গম্যানের সঙ্গে কাজ শুরু করেন। নিজের বিজ্ঞাপনে অভিনেত্রীকে দেখে এতটাই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে পরে বার্গম্যানের চলচ্চিত্রে নিয়মিত মুখ হয়ে যান অ্যান্ডারসন। একসঙ্গে করেন ১৩টি ছবি। বেশির ভাগ সময়ই অ্যান্ডারসন অভিনয় করতেন স্বাধীনচেতা তরুণীর চরিত্রে, যা তাঁকে স্বাধীনতা, উচ্ছলতার প্রতীকে পরিণত করে। এর মধ্যে ‘দ্য সেভেন্থ সিল’, ‘পারসোনা’, ‘ওয়াইল্ড স্ট্রবেরিজ’ উল্লেখযোগ্য।  



মন্তব্য