logo
আপডেট : ১২ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:১৯
অভাবিত ঘেরাটোপে বাংলাদেশ দল

অভাবিত ঘেরাটোপে বাংলাদেশ দল

দক্ষিণ আফ্রিকানদের কাছে নামটি হয়তো ভিন্ন; কিন্তু এ তো সেই আমাদের চিরচেনা ঘুঘু পাখিই। যার একঘেয়ে ক্লান্ত সুরের ডাকে কাল দুপুরের ব্লুমফন্টেইনের নির্জনতা তীব্র হয় আরো। আর সকালের বাংলাদেশ দলও যেন অমন নির্জনতাকে ভাবছে সাফল্যের আবশ্যকীয় পূর্বশর্ত। সে কারণেই প্রায় চার ঘণ্টার অনুশীলনে প্রবেশাধিকার মেলে না সাংবাদিকদের। এরপর গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার জন্যও পাঠানো হয় না কাউকে।

অদ্ভুত এক ঘেরাটোপে এখন বাংলাদেশ দল। যেখানে গণমাধ্যমই যেন প্রতিপক্ষ! বাংলাদেশ দল যে ‘ক্লোজ ডোর’ নেট ব্যাটিং করে, সেটি দেখেও হতভম্ব প্রোটিয়া সাংবাদিকরা। এমন কিছুর সঙ্গে তাঁদের পরিচয় হয়নি কস্মিনকালেও। ওদিকে ম্যানেজার মিনহাজুল আবেদীন সকাল সকালই জানিয়ে দেন মিডিয়াকে উপেক্ষার কথা, ‘কাল (পরশু) টিম ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এমওইউতে যেসব সংবাদ সম্মেলন আছে, এর বাইরে কেউ গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলবে না।’ অথচ এমন কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে দিব্যি দাবি করে যান টিম ম্যানেজমেন্টের সবচেয়ে ক্ষমতাবান সদস্য কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহে, ‘আমার এমন কিছু জানা নেই।’ কিন্তু ম্যানেজার যে বললেন? ‘তাহলে সেটি তাঁর কাছে জিজ্ঞেস করুন’—ঝাঁঝালো প্রতিক্রিয়া কোচের।

হাতুরাসিংহের ক্রিকেটীয় প্রতিক্রিয়া জানার জন্য অবশ্য গণমাধ্যমের অপেক্ষা বেশ কিছুদিনের। সেই যে প্রথম টেস্ট শুরুর আগের দিন মিডিয়ার মুখোমুখি হয়েছেন, ব্যস! পচেফস্ট্রুমে দল যাচ্ছেতাইভাবে হারল, একেক দিন দলের প্রতিনিধি হিসেবে একেক ক্রিকেটার এলেন—কোচ এক দিনও না। দ্বিতীয় টেস্টের আগে, মাঝে, শেষে—কখনো আসেননি। ওয়ানডে সিরিজের স্কোয়াডে যোগ দেওয়া চার ক্রিকেটারকে নিয়ে ঐচ্ছিক অনুশীলন শুরুর দিনও তাঁকে চেয়ে পাওয়া যায়নি। হাতুরাসিংহের সঙ্গে কথা বলে এসে ম্যানেজার মিনহাজুল জানিয়েছিলেন, ‘কোচ ১১ তারিখ কথা বলবেন।’ কাল সেই ১১ তারিখ আসতে আসতে তো গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার ওপরই অঘোষিত নিষেধাজ্ঞা! দুই টেস্টে দলের ব্যর্থতার এতটুকুন দায় নিতেও এতটা অরাজি কোচ! টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম যে হাতুরাসিংহের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে করা প্রশ্নের উত্তরে বলেছিলেন, ‘এই প্রশ্ন কোচকে করাই ভালো’—সে প্রশ্নের মুখোমুখি হতেও এত ভয়!

আর ক্রিকেটাররা যে ‘১০০০ রান’, ‘ডাবল সেঞ্চুরি’, ‘ভালো বোলিং’-এর অদ্ভুতুড়ে গালগপ্প করে গেছেন, টেস্ট অধিনায়ক মুশফিক সত্যকথনে কাঁপিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটমহল—এগুলো প্রকাশেই কি গণমাধ্যমের ওপর রোষ? কিন্তু তাঁরা অমনটা বললে তা প্রকাশে দায় কোথায়! এর চেয়ে ক্রিকেটারদের ঠিকমতো শিখিয়ে-পড়িয়ে গণমাধ্যমের সামনে পাঠালেই তো হয়!

তবে ‘বেহুলার বাসরঘরে’ বাংলাদেশ দলের কালকের অনুশীলন হয়েছে জম্পেশ। সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু করে প্রায় চার ঘণ্টার। দুই দিনের ছুটি কাটানোর পর ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিংয়ে ঘাম ঝরিয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল। সবচেয়ে স্বস্তিদায়ক অবশ্যই তামিম ইকবালের ব্যাট হাতে প্রত্যাবর্তন। পচেফস্ট্রুম টেস্ট শেষে কালই প্রথম ব্যাট ধরলেন তিনি। নেটে ব্যাটসম্যানরা সময় কাটান প্রচুর। প্রায় দুই বছর পর ওয়ানডে স্কোয়াডে ফেরা মমিনুল হকও ঝালিয়ে নিয়েছেন নিজেকে। আর বোলাররা ১০ ওভার করে বোলিং শেষে স্পট বোলিং করেন বেশ কিছুক্ষণ। সেখানে ইয়র্কারের অনুশীলনই হয় বেশি।

আজ ম্যানগাউং ওভালে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশের বিপক্ষে ৫০ ওভারের প্রস্তুতি ম্যাচ বাংলাদেশের। সেখানে তামিমের খেলার সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে দেননি ম্যানেজার মিনহাজুল, ‘হয়তো ও খেলবে না, তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব কাল।’ তবে তামিম তা নাকচ করে দেন সরাসরি, ‘আমার এই ম্যাচ খেলার কথা কখনোই ছিল না।’ তবে তামিম না খেললেও বাংলাদেশ এখানে জয়ের জন্য ঝাঁপাবে বলে দাবি ম্যানেজারের, ‘প্রতিপক্ষ দল অনেক শক্তিশালী। তার পরও অবশ্যই আমরা এই ম্যাচে জিততে চাই। তাহলে ওয়ানডে সিরিজের আগে তা আত্মবিশ্বাস বাড়াবে।’

ঠিক এই জায়গাটায় আবার ভিন্ন মত জেপি দুমিনির। অনুশীলন ম্যাচের আগের দিন প্রথার বিরুদ্ধে গিয়ে বাংলাদেশ কাউকে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে দেয়নি বটে, তবে স্বাগতিক দলের ওই অলরাউন্ডার ঠিকই মুখোমুখি হন। সেখানে বাংলাদেশ নিয়ে তাঁর কণ্ঠে সতর্কতা, ‘আমি নিশ্চিত যে টেস্ট সিরিজের চেয়ে ওয়ানডে সিরিজ জয় কঠিন হবে। কারণ সাম্প্রতিক সময়ে ওয়ানডেতে বাংলাদেশ খুব উন্নতি করেছে। আমি তাই ওদের কাছ থেকে কঠিন লড়াই প্রত্যাশা করছি।’ সাকিব আল হাসানের প্রত্যাবর্তনের কারণেও বাংলাদেশ চাঙ্গা থাকবে বলে দাবি তাঁর, ‘কোনো সন্দেহ নেই যে সাকিবের ফেরা ওদের উজ্জীবিত করবে। টেস্ট সিরিজে দল ওকে মিস করেছে। কেননা সাকিব বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এক খেলোয়াড় এবং ম্যাচ উইনার।’ আজকের ম্যাচে আবার ফিরছেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের ত্রাস হতে পারেন যিনি। তবে এর আগে আজেকর ম্যাচটিকেই ভিন্নভাবে দেখার ঘোষণা দিয়েছেন দুমিনি, ‘টেস্ট সিরিজে হারের কারণে ওদের আত্মবিশ্বাস এমনিতেই কম। এই ম্যাচ জিতে আমরা তাতে আরেকটু ধাক্কা দিতে চাই।’

কে জানে, এমন কিছু হলে হয়তো ভবিষ্যতে অনুশীলন ম্যাচও ‘ক্লোজ ডোর’ করার আবদার করে বসতে পারে বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট!

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com