logo
আপডেট : ১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০৮
মুখোমুখি প্রতিদিন
ভারতে বাংলাদেশের মেয়েদের দরজা খুলে গেছে

ভারতে বাংলাদেশের মেয়েদের দরজা খুলে গেছে

ভারতীয় লিগ মাতিয়ে ফিরেছেন সাবিনা খাতুন। গ্রুপ পর্বে ছয় ম্যাচের চারটিতে টানা গোল করেছেন। এই চার ম্যাচে তাঁর মোট ৬ গোল। তাতে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষেও ছিলেন। তামিলনাড়ুর দল সেথু এফসিকে শিরোপার স্বপ্নও দেখাচ্ছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত তা না হলেও বাংলাদেশি এই স্ট্রাইকার ঠিকই ছাপ রেখে এসেছেন ভারতের ফুটবলে। সে প্রসঙ্গেই কথা বলেছেন তিনি

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : ভারতে স্মরণীয় একটা সময় কাটিয়ে এলেন, কেমন অনুভূতি হচ্ছে?

সাবিনা খাতুন : ওখানে সব কিছুই ভালো ছিল। গ্রুপ পর্বে আমরা ভালো করছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেমিফাইনালটা জিততে পারলাম না। এটাই বেশি খারাপ লাগার। আর বাকি সব কিছুই ঠিক ছিল। আসলে ওখানে তো গিয়ে আমি টুর্নামেন্টটার চূড়ান্ত পর্ব খেলেছি। ওই চূড়ান্ত পর্বের প্রতিটি দলই শক্তিশালী। সেমিতে শেষ পর্যন্ত সে কারণেই আটকে গেলাম।

প্রশ্ন : দলের ভেতর আপনার সময়টা কেমন কেটেছে?

সাবিনা : শুরু থেকেই ওরা আমাদের আপন করে নিয়েছিল। আমাদের পারফরম্যান্সেও ক্লাব ম্যানেজমেন্ট খুশি। বলতে পারেন একটা ঘরোয়া পরিবেশেই কাটিয়েছি ওখানে। এর জন্য আমার সতীর্থদের কথাই বলব বেশি করে। ওরা আমাদের (সাবিনা ও কৃষ্ণা) খুবই সহযোগিতা করেছে।

প্রশ্ন : গ্রুপ পর্বে টানা গোল পাচ্ছিলেন, সেমিফাইনালে গোল করতে না পেরে ব্যক্তিগতভাবেও কি কিছুটা হতাশ?

সাবিনা : ওরা আসলে আমাদের ওপর নির্ভর করেছে। আমি আরো গোল করতে পারলে নিশ্চয় সেথু এফসিও আরো ভালো করতে পারত। প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই তো আমি গোল করেছি। দলও ভালো খেলছিল। সব মিলিয়ে যে লক্ষ্য নিয়ে গিয়েছিলাম সেটা পূরণ হয়েছে। তবে মনে হয় এর চেয়েও ভালো করতে পারতাম।

প্রশ্ন : মালদ্বীপে খেলেছেন, এবার ভারতেও খেললেন, কিন্তু আপনার নিজের দেশেই তো লিগ নেই...

সাবিনা : আমাদের দেশেও লিগটা খুবই দরকার। লিগ না হলে খেলোয়াড় কোথায় পাবেন! লিগ হলেই না অনেক মেয়েদের খেলার সুযোগ হয় একসঙ্গে। আমাদের দেশে তো মেয়ে ফুটবলারদের জন্য তেমন সুযোগ-সুবিধা নেই। লিগ হলে সেখানে মেয়েরা নিয়মিত খেলার সুযোগ পাবে, আর্থিকভাবেও তাতে সচ্ছল হবে। সত্যি বলতে এখন বাংলাদেশের মেয়েদের জন্যও লিগ করার সময় চলে এসেছে।

প্রশ্ন : ওখানে কৃষ্ণা রানী খেলার তেমন সুযোগ পাননি, ওকে নিয়ে কী বলবেন?

সাবিনা : আসলে ম্যাচে একজন বিদেশি খেলোয়াড় খেলানোর সুযোগ ছিল। সে কারণেই ওর মাঠে নামাটা কম হয়েছে। কোচই ঠিক করেছেন আমার আর কৃষ্ণার মধ্যে কে মাঠে নামবে।

প্রশ্ন : সেথু নিশ্চয় আগামী লিগেও আপনাকে চাইবে...

সাবিনা : আমাদের এবারের পারফরম্যান্সে বাংলাদেশের আর সব মেয়ের জন্যও ভারতীয় লিগের দরজা খুলে গেল।

সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন,
নির্বাহী সম্পাদক : মোস্তফা কামাল,
ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com