kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

ব্যবসায়ী হত্যার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০১:২৮



ব্যবসায়ী হত্যার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে সমাবেশ

চট্টগ্রামে যুবদল নেতা ও পরিবহন ব্যবসায়ী হারুন অর রশিদ চৌধুরী হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর কদমতলী ট্রাকস্ট্যান্ডসংলগ্ন পলাশী চত্বরে 'সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটির' ব্যানারে আয়োজিত সমাবেশে বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

আগামী রবিবার পুলিশ কমিশনার বরাবর স্মারকলিপি দেওয়া, ১৩ ডিসেম্বর সংহতি সমাবেশ এবং ১৮ ডিসেম্বর মানববন্ধন কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয় সমাবেশ থেকে।

গত ৩ ডিসেম্বর গুলি করে হত্যা করা হয় হারুনকে। বিএনপি নেতারা ওই ঘটনার জন্য যুবলীগ ও ছাত্রলীগকে দায়ী করেন।
স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি উদ্‌যাপনের লক্ষ্যে আয়োজিত আনন্দ শোভাযাত্রা থেকে কিছু সন্ত্রাসী হারুনকে পিটিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে। ওই শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দিয়েছিলেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের, পার্শববর্তী মোগলটুলীর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল কাদের, ফিরিঙ্গীবাজারের ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব এবং সিআরবি জোড়া খুন মামলার আসামি সাইফুল ইসলাম লিমন।

গতকাল সমাবেশে হারুনের বড় বোন রাহেলা বানু হত্যাকাণ্ডের দিন পুলিশের ভূমিকার সমালোচনা করে বলেন, 'হারুনকে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশকে বলেছি। তারা ফঁাকা গুলি ছুড়লেও সন্ত্রাসীদের গুলি করেনি। ' আওয়ামী লীগ-বিএনপি বিবেচনা না করে সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রপ্তোরের দাবি জানান তিনি। সেদিনের সমাবেশে উপস্থিত তিন কাউন্সিলরের সমালোচনা করে তিনি বলেন, 'ওই দিন আপনারা তিন কাউন্সিলর উপস্থিত ছিলেন।

আপনারা পাহারা দিয়ে হত্যাকারীদের চলে যাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। কিন্তু আজকের প্রতিবাদ সমাবেশে কেউ আসেননি। '

নগর বাইশ মহল্লার সর্দার শওকত আলীর সভাপতিত্বে এবং সুফিয়ার রহমান টিপুর সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন নিহত হারুনের চাচি ডা. কামরুন্নাহার দস্তগীর, বড় ভাই হুমায়ুন রশিদ চৌধুরী, স্থানীয় মহল্লা সর্দার নুরুল ইসলাম, নুরুল আবসার, সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বাসদ নেত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস পপি।


মন্তব্য