kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

লস্কর নিয়োগ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অভিযোগ নৌমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:৫৮



লস্কর নিয়োগ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অভিযোগ নৌমন্ত্রীর

শাজাহান খান। ফাইল ছবি

লস্কর নিয়োগ বিষয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা চলছে বলে অভিযোগ করেছেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। গতকাল রবিবার চট্টগ্রাম বন্দরে এক সভায় তিনি এ বিষয় নিয়ে কথা বলেন।

চট্টগ্রাম বন্দর প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে গতকাল দুপুরে অনুষ্ঠিত হয় বন্দর উপদেষ্টা কমিটির ১২তম সভা। এতে সভাপতিত্ব করেন নৌমন্ত্রী শাজাহান খান। সভায় উপস্থিত ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সংসদ সদস্য এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী, এম এ লতিফ, শামসুল হক চৌধুরী, নজরুল ইসলাম, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদ, বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম খালেদ ইকবাল, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আবদুল মান্নান, নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমোডর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম, চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম, বিজিএমইএর প্রথম সহসভাপতি মঈনুদ্দিন আহমেদ মিন্টু, বাংলাদেশ শিপিং এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আহসানুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ ইনল্যান্ড কনটেইনার ডিপোট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নুরুল কাইয়ুম খান, চেম্বার পরিচালক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে এম আকতার হোসেন, চেম্বারের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ প্রমুখ।

সভায় মন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, চট্টগ্রামের একজন সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদে ভুল তথ্য উপস্থাপন করে বলেছেন, 'আমি নাকি ৯২ জন লস্কর নিয়োগ দিয়েছি। এর মধ্যে ৯০ জন মাদারীপুরের, কেবল দুজন চট্টগ্রামের। এমন তথ্যের কারণে অনেকেই বিভ্রান্ত হয়েছেন। আসলে লস্কর পদে ২৬ জেলা থেকে ৮৫ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আর গত আট বছরে ১১৫ পদে এক হাজার ৯৪৮ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। লস্করসহ বন্দরে এ পর্যন্ত যেসব নিয়োগ হয়েছে সেখানে স্বজনপ্রীতি করিনি। সবার সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই কাজ করছি। অসত্য তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার পেছনে হীন স্বার্থ জড়িত থাকতে পারে। গত আট বছরে বন্দরে কোনো অসন্তোষ হয়নি। এ সময়ে বন্দর নিজের সক্ষমতা প্রমাণ করে ২৭ ধাপ এগিয়েছে।'

নৌমন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, 'আমি আইন মেনে দায়িত্ব পালন করছি। যাঁরা অযাচিত হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুলছেন তাঁরাই বরং বন্দর নিয়ে কথা বলে অযাচিত হস্তক্ষেপ করছেন। প্রধানমন্ত্রী আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন বলেই আমি চট্টগ্রামে কাজ করছি।'



মন্তব্য