kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রামে শিশুকে যৌন নির্যাতনের পর হত্যার চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১২ মার্চ, ২০১৮ ০৪:১৬



চট্টগ্রামে শিশুকে যৌন নির্যাতনের পর হত্যার চেষ্টা

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলায় তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের পর হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আর এ অভিযোগে বিদ্যালয়ের এক দপ্তরিকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। ভুক্তভোগী ছাত্রীকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার বিকেল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী শিশুর এক চাচা জানান, গোঙানির শব্দ পেয়ে সেপটিক ট্যাংক থেকে ওই ছাত্রীকে তার বাবাই উদ্ধার করে। তবে রাত ৯টা পর্যন্ত তার জ্ঞান ফেরেনি।

ঘটনা ঘটেছে কাটিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে। একই কম্পাউন্ডে কাটিরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। আটক দপ্তরির নাম আপন মালি মল্লিক (৪৫)।

চাচার ভাষ্য, ওই ছাত্রীর এক ভাই পড়ে কাটিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে। বিকেলে স্কুল ছুটির পর এক সহপাঠীকে নিয়ে সে ভাইয়ের সঙ্গে দেখা করতে উচ্চ বিদ্যালয়ে যায়। এ সময় তার ভাতিজিকে দপ্তরি বিদ্যালয়ের দোতলায় নিয়ে যায় এবং বান্ধবীকে বাড়ি চলে যেতে বলে। চাচা বলেন, এরপর বিকেল হওয়ার পরও ভাতিজি বাড়িতে না ফেরায় তাকে খোঁজখুঁজি শুরু করে পরিবারের অন্য সদস্যরা। একপর্যায়ে স্কুলের সেপটিক ট্যাংকে গোঙানির শব্দ পেয়ে তাকে উদ্ধার করা হয়। ওই ছাত্রীর গলা ও কপালে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন আছে।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক আলাউদ্দিন জানান, ছাত্রীকে ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তার গলা, মাথা ও কানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দিন মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, 'স্থানীয়রা দপ্তরিকে আটক করে থানায় সোপর্দ করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দপ্তরি ছাত্রীকে যেৌন নির্যাতনের কথা স্বীকার করেছে। তাই ছাত্রীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে হবে। এ ছাড়া দপ্তরির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।'


মন্তব্য