kalerkantho

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

বালুখালী শিবিরে রোহিঙ্গা নেতা আরিফুল্লাহ খুন

জঙ্গিদের কাজ!

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার   

১৯ জুন, ২০১৮ ০৩:১৬



বালুখালী শিবিরে রোহিঙ্গা নেতা আরিফুল্লাহ খুন

রোহিঙ্গা শিবিরের একজন উচ্চশিক্ষিত শীর্ষ নেতা নির্মমভাবে খুন হয়েছেন। নিহত আরিফুল্লাহ (৩৫) উখিয়ার বালুখালী-২ নম্বর রোহিঙ্গা শিবিরের প্রধান ছিলেন। অভিযোগ উঠেছে, গতকাল সোমবার রাত ৮টার দিকে প্রতিপক্ষ জঙ্গি রোহিঙ্গা গ্রুপের একদল সদস্য তাঁকে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনার পর রোহিঙ্গা শিবিরে নতুন করে উগ্রপন্থীদের উত্থান নিয়েও সন্দেহ বাড়ছে।

রোহিঙ্গা শিবিরের নানা সূত্র মতে, আরিফুল্লাহ ‘রহস্য রোহিঙ্গা’ হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তিনি ছিলেন রাখাইনের মংডুর কুলারবিলের বাসিন্দা। রোহিঙ্গা শিবিরে জনশ্রুতি রয়েছে, তিনি রাখাইনে রোহিঙ্গাদের জঙ্গি গ্রুপ আল ইয়াকিন তথা আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন। রোহিঙ্গারা জানায়, আরিফুল্লাহ রোহিঙ্গা শিবিরে গোপনে অবস্থানকারী আল ইয়াকিনের টার্গেট ছিলেন। 

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী গত রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আরিফুল্লাহ ছিলেন মিয়ানমারের রাজধানী ইয়াঙ্গুন বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চশিক্ষিত রোহিঙ্গা। তিনি ইংরেজি ভাষায় পারদর্শী থাকার কারণে বিদেশিদের সঙ্গেও তাঁর ভালো সম্পর্ক ছিল।’ ইউএনও জানান, আরিফুল্লাহ রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ সরকারের লোকজনকে যথেষ্ট সহযোগিতা করে গেছেন। এমনকি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্যদের ত্রাণ বিতরণসহ অন্যান্য কার্যক্রমেও তাঁর সহযোগিতা বেশ ভালো ছিল। বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও সেনাপ্রধানের রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনের সময় রোহিঙ্গাদের পক্ষে তিনিই বক্তব্য দিয়েছিলেন। ইউএনও ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে জানান, আরিফুল্লাহ প্রতিপক্ষের হুমকির কারণে বালুখালী শিবিরে রাত যাপন করতেন না। গতকাল তিনি সিএনজিচালিত ট্যাক্সি নিয়ে বের হওয়ার সময় শিবিরের বাইরে হামলার শিকার হন। 

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল খায়ের বলেন, ‘রোহিঙ্গা নেতা আরিফুল্লাহকে নিয়ে আমরা বরাবরই টেনশনে ছিলাম। গত ১৯ জানুয়ারি রাতেও হামলা হয়েছিল তাঁর ওপর। সেই সময় কয়েকজন উগ্রবাদী রোহিঙ্গা সদস্য আটকও হয়েছিল।’ ওসি বলেন, তাঁকে কারা হত্যার চেষ্টা করছে এসব বিষয়ে বারবার জানার চেষ্টা করলেও তিনি পরিষ্কার ধারণা পুলিশকে দিতেন না।



মন্তব্য