kalerkantho


অর্থ আত্মসাৎ

পদ্মা অয়েলের সাবেক এমডি কারাগারে

আদালত প্রতিবেদক   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২১:৩৪



পদ্মা অয়েলের সাবেক এমডি কারাগারে

প্রতীকী ছবি

অর্থ আত্মসাৎ সংক্রান্ত করা দুর্নীতির মামলায় পদ্মা অয়েল কম্পানির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আবুল খায়েরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেলোয়ার হোসেন শুনানি শেষে আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আদালতে আসামির পক্ষে জামিন চেয়ে আবেদন করা হলে তা নাকচ করেন বিচারক।

এর আগে দুর্নীতির অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের সহকারি পরিচালক সিরাজুল ইসলাম। গ্রেপ্তার সংক্রান্ত এক প্রতিবেদন দাখিল করে মামলার বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত আসামিকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন।

গত বুধবার রাতে দুদক পরিচালক এ কে এম জায়েদ হোসেন খানের নেতৃত্বে কমিশনের আর্মড পুলিশ ইউনিট রাজধানীর গুলশানের নিজ বাসা থেকে আবুল খায়েরকে গ্রেপ্তার করে।

উড়োজাহাজের জ্বালানি সরবরাহের জন্য হাইড্রেন্ট লাইন নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন সংক্রান্তে প্রকৃত ব্যয়ের অতিরিক্ত দেখিয়ে যোগসাজশে দুই কোটি ৭৫ লাখ ৮৪ হাজার ৬২২ টাকা আত্মসাৎ করেছেন অভিযোগে চলতি বছরের ৬ এপ্রিল দুদকের উপ-সহকারি পরিচালক সিরাজুল হক বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলায় ম্যাক্স ওয়েল ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ লিমিটেডের এমডি মো. ফাহিম জামান পাঠান ও প্রকল্প পরিচালক মো. আলী হোসেনকেও আসামি করা হয়েছে। তারা এখনো গ্রেপ্তার হয়নি।

মামলায় বলা হয়, ২০১২ সালে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজের জ্বালানি সরবরাহের জন্য হাইড্রেন্ট লাইন নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শুরম্ন করে পদ্মা অয়েল কম্পানি। গত বছর জুনে প্রকল্পের কাজ শেষ হয়।

প্রকল্পের কাজের মোট ব্যায় দেখানো হয় নয় লাখ ৬৭ হাজার ৪০০ মার্কিন ডলার।

দুদকের অনুসন্ধানে প্রকল্পের সাকুল্য ব্যায় ছয় লাখ ৩২ হাজার ৮৩৮ মার্কিন ডলার মর্মে প্রমান পাওয়া গেছে। বাকি অর্থ আসামিরা পরস্পর যোগসাজসে দুর্নীতির মাধ্যমে আত্মসাৎ করেছেন।


মন্তব্য