kalerkantho


মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার

ত্রিশালের ৯ জনের বিরুদ্ধে ফরমাল চার্জ ৫ মার্চ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ২২:৪৪



ত্রিশালের ৯ জনের বিরুদ্ধে ফরমাল চার্জ ৫ মার্চ

মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ময়মনসিংহের ত্রিশালের ৯ জনের বিরুদ্ধে আগামী ৫ মার্চ ফরমাল চার্জ (আনুষ্ঠানিক অভিযোগ) দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। আজ বৃহস্পতিবার ফরমাল চার্জ দাখিলের দিন ধার্য ছিল। রাষ্ট্রপক্ষে সময় চেয়ে আবেদন করলে তা মঞ্জুর করে বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল পরবর্তী এ দিন ধার্য করেন। 

ত্রিশালের জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচিত সাবেক এমপি মো. আনিছুর রহমান মানিকসহ এই মামলার ৯ আসামি হলো, সামসুল হক বাচ্চু, মো. মোখলেছুর রহমান মুকুল, মো. সাইদুর রহমান রতন, শামছুল হক ফকির, নুরুল হক ফকির, সুলতান ফকির ওরফে সুলতান মাহমুদ, এবিএম মুফাজ্জল হুসাইন ও নকিব হোসেন আদিল সরকার। এর মধ্যে সামসুল হক বাচ্চু ও এবিএম মুফাজ্জল হুসাইন গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে রয়েছে, বাকিরা পলাতক রয়েছেন।

এই ৯ জনের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধকালীন হত্যা, আটক, অপহরণ, নির্যাতনসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের চারটি অভিযোগ সম্বলিত চুড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন গত ৩১ ডিসেম্বর প্রকাশ করে ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা। পরবর্তীতে প্রতিবেদনটি ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটরের কার্যালয়ে দাখিল করা হয়। প্রতিবেদনটি যাচাই বাছাই করে ট্রাইব্যুনালে ফরমাল চার্জ আকারে দাখিলের জন্য আজ সময় চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। 
এদিন রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম ও রেজিয়া সুলতানা চমন।

গত বছরের ২৬ জানুয়ারি মানবতাবিরোধী অপরাধের এই মামলার তদন্ত শুরু করে ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা। এর আগে ত্রিশালের দেওপাড়া সাজু মাহমুদ মন্ডলের ছেলে সামসুল হক বাচ্চু একটি হত্যা মামলায় ১২ জানুয়ারি গ্রেপ্তার হয়। পরে তদন্ত সংস্থার আবেদনের প্রেক্ষিতে গতবছরের ২৮ এপ্রিল তাকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। আটক থাকা অপর আসামি এবিএম মোফাজ্জল হোসেন একটি হত্যা মামলায় গত বছরের ২৮ জুলাই গ্রেপ্তার হয়ে ময়মনসিংহ কারাগারে আটক ছিল। 

সামসুল হক বাচ্চুর বিরুদ্ধে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের তদন্ত করতে গিয়ে মোফাজ্জল হোসেনের সম্পৃক্ততা পায় ট্রাইব্যুনারের তদন্ত সংস্থা। এর প্রেক্ষিতে তাকে গত ১৮ অক্টোবর ট্রাইব্যুনালে হাজির করলে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো নির্দেশ দেওয়া হয়।

 



মন্তব্য