kalerkantho


২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা

আরো ৩ পলাতক আসামির খালাস দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০২:০৯



আরো ৩ পলাতক আসামির খালাস দাবি

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার পলাতক আরো তিন আসামির খালাস দাবি করেছেন তাঁদের আইনজীবীরা। গতকাল মঙ্গলবার রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবীরা তাঁদের পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানি করেন। এ নিয়ে পলাতক মোট আট আসামির পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ হলো।

এর আগে গত ২ ও ৩ জানুয়ারি পলাতক পাঁচ আসামির পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ হয়।  

ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশের মাঠে স্থাপিত দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিশেষ এজলাসে কারাগারে থাকা আসামিদের উপস্থিতিতে এ শুনানি হয়। নৃশংস, চাঞ্চল্যকর ও ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ঘটনায় হত্যা ও বিস্ফোরকদ্রব্য আইনের দুটি মামলায় গত ১১ অক্টোবর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হওয়ার পর বিচারক শাহেদ নুর উদ্দিন যুক্তিতর্ক শুনানির দিন ধার্য করেন। রাষ্ট্রপক্ষ প্রথমে শুনানি করে।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট জঙ্গিরা গ্রেনেড হামলা চালায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমাবেশে। তাঁকে হত্যার পরিকল্পনা সফল না হলেও উপর্যুপরি গ্রেনেড হামলায় মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জনকে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় আহত হয় ৩৩৮ জন দলীয় নেতাকর্মী, সমর্থক, কর্তব্যরত সাংবাদিক, পুলিশ ও নিরাপত্তাকর্মী।

ট্রাইব্যুনাল সূত্রে জানা গেছে, গতকাল পলাতক আসামি জাহাঙ্গীর আলম বদরের পক্ষে অ্যাডভোকেট সায়েদুল হক নান্না, আসামি রাতুল বাবুর পক্ষে অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান ও আসামি মাহুবুল মুত্তাকিনের পক্ষে অ্যাডভোকেট হালিমা খাতুন শুনানি করেন।

জানা যায়, মাত্র ১৫ মিনিটের মধ্যে তিনজনের পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ হয়। পলাতক এ আসামির পক্ষে আইনজীবীরা আসামিদের নির্দোষ দাবি করে বেকসুর খালাস চান। তঁারা বলেন, কোনো সাক্ষীই এই তিন আসামির বিরুদ্ধে কোনো সাক্ষ্য দেননি। সহ-আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির ভিত্তিতে অন্য আসামিকে শাসি্ত দেওয়া যায় না।

বিচারক এজলাসে ওঠার পর দ্রত তিন আসামির যুক্তিতর্ক শেষ হয়। এরপর মামলার কার্যক্রম আজ বুধবার সকাল পর্যন্ত মুলতবি করেন আদালত। তবে মুলতবি করার আগে ট্রাইবু্যনাল অন্য আসামিদের পক্ষে যুক্তিতর্ক শুনানির আহ্বান জানান। এ সময় পলাতক অন্য আসামিদের পক্ষে শুনানি করতে আর কোনো আইনজীবীকে উপস্থিত পাওয়া যায়নি।

পরে কারাগারে থাকা আসামিদের পক্ষে শুনানির আহ্বান জানালে উপস্থিত আইনজীবীরা জানান, তাঁদের প্রস্তুতি নেই।

এ সময় রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইনজীবী সৈয়দ রেজাউর রহমান বলেন, আগের থেকে যুক্তিতর্কের শুনানির তারিখ ধার্য থাকা সত্ত্বেও আইনজীবীরা প্রস্তুত নন। সময় নষ্ট করার জন্য এটা ষড়যন্ত্র কি না তা ভেবে দেখতে হবে। পরে ট্রাইব্যুনাল বলেন, আইনজীবীরা অসুস্থ থাকতে পারেন বা বিভিন্ন অসুবিধা থাকতে পারে। ষড়যন্ত্রের কিছু থাকতে পারে বলে মনে হয় না। এরপর আদালত মুলতবি করা হয়।

উল্লেখ্য, আজ বুধবার ও আগামীকাল বৃহস্পতিবার শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।


মন্তব্য