kalerkantho


'বিসমিল্লায় গলদ' বাগধারায় ভ্রান্তি

দিদার উল আলম   

৮ নভেম্বর, ২০১৭ ১৮:৫৫



'বিসমিল্লায় গলদ' বাগধারায় ভ্রান্তি

ইন্টারনেট থেকে

বাগধারা একধরনের গভীর ভাব ও অর্থবোধক শব্দ বা শব্দগুচ্ছ । এটি কথ্য ভাষার সম্পদ হলেও তা এখন আর কথা-বার্তায় সীমাবদ্ধ নেই।

সাহিত্যেও রয়েছে এর বিচরণ । মনের ভাব অল্প কথায় আরো সুন্দর ও যথাযথভাবে প্রকাশ করার জন্যই বাগধারা।  

কোনো কিছুর শুরুতে ভুল হলে বাগধারা হিসেবে ‘গোড়ায় গলদ’, ‘বিসমিল্লায় গলদ’ ব্যবহার করা হয়। অথচ ‘বিসমিল্লাহ’ শব্দটি পবিত্র কোরআনের সুরা নামলে বর্ণিত ৩০ নম্বর আয়াতের অংশ । আয়াতটিতে ‘বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম’ পুরো বর্ণিত হয়েছে। এ ছাড়াও পবিত্র কোরআনের ১১৪ সুরার মধ্যে ১১৩ টির শুরুতেও (শুধুমাত্র সুরা তাওবা ছাড়া) ‘বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম’ রয়েছে। পবিত্র কোরআন ও হাদিসে ‌'বিসমিল্লাহ'র অসংখ্য ফজিলত বর্ণিত হয়েছে। ঈমানদার মুসলিমের কাছে 'বিসমিল্লাহ'র গুরুত্ব বর্ণনাতীত।  

'বিসমিল্লাহ' অর্থ আল্লাহর নামে ।

আর 'গলদ' শব্দের অর্থ ভুল । তাই 'বিসমিল্লায় গলদ' কথাটার এমন অর্থ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে যে 'বিসমিল্লায়' বা আল্লাহর নামে ভুল আছে! (নাউজুবিল্লাহ)

কোনো কিছুর শুরুতে ভুল হলে ‘বিসমিল্লায় গলদ’ বাগধারাটি কেউ কেউ ব্যবহার করেন । বই-পুস্তুকেও বাগধারাটি বিদ্যমান।   অসাবধানতার কারণে হয়তো এটির ব্যবহার চলে আসছে। কোনো রকম যুক্তি, তর্ক, প্রশ্ন ও মন্তব্য না করেই কোরআন ও হাদিসের মাত্র ৩টি উদ্বৃতি পেশ করছি : 

(১) পবিত্র কোরআনে এসেছে, 'মানুষ যে কথাই উচ্চারণ করে, তার জন্য তৎপর প্রহরী তার কাছেই আছে । ' (সুরা ক্বফ, আয়াত : ১৮)।   

(২) হাদিস শরিফে এসেছে, হজরত আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে বলতে শুনেছেন, ‘‌নিশ্চয় বান্দা কখনো কখনো পরিণাম চিন্তা না করে এমন কথা বলে ফেলে, যার ফলে সে নিক্ষিপ্ত হবে জাহান্নামের এমন গভীরে, যার দুরত্ব পূর্ব-পশ্চিমের মধ্যকার দূরত্বের চেয়ে অধিক । '  (বুখারি, হাদিস নম্বর : ৬০৩৩, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, ৬০২৭, আধুনিক প্রকাশনী)।  

(৩) হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। নবী করিম (সা.) বলেন, 'নিশ্চয় বান্দা কখনো আল্লাহর সন্তুষ্টিমূলক কোনো কথা বলে, অথচ এ সম্পর্কে তার কোনো ধারণাই থাকে না। এর ফলে আল্লাহ তার মর্যাদা অনেক গুণ বাড়িয়ে দেন। আবার বান্দা কখনো বেপরোয়াভাবে আল্লাহর অসন্তুষ্টিমূলক কোনো কথা বলে, যার পরিণতি সম্পর্কে সে সচেতন নয়। অথচ সে কথার কারণে সে জাহান্নামে নিক্ষিপ্ত হবে । ' (বুখারি, হাদিস নম্বর : ৬০৩৪, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, ৬০২৮, আধুনিক প্রকাশনী)।  

বাগধারা হিসেবে যারা উল্লিখিত বাক্য ব্যবহার করেন, তাদের অনুরোধ করব ভবিষ্যতে তা না করার জন্য। এ বিষয়ে  ধর্ম মন্ত্রণালয়, শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এবং পুস্তক প্রণেতা ও প্রকাশকদের সুদৃষ্টি কামনা করছি ।

লেখক :  শিক্ষক, সাংবাদিক ও কলামিস্ট


মন্তব্য