kalerkantho


রিজিকের ওপর আস্থা রাখুন

কাজি সুলতানুল আরেফিন   

১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ১৮:৩১



রিজিকের ওপর আস্থা রাখুন

আমরা অনেক সময় নিজের বর্তমান দুর্দশা নিয়ে অস্থির হয়ে পড়ি। হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ি।

কিন্তু ধৈর্যের সঙ্গে চিন্তা করে দেখি না যে আমরা সবাই দুনিয়ায় আসার সময় প্রত্যেকেই সবার রিজিক নিয়ে এসেছি। রিজিকের বরাদ্দ আমাদের সবার জন্য আল্লাহর দরবার থেকে নির্ধারিত করা হয়েছে।

জীবিকার জন্য এমন দুশ্চিন্তা করা আমাদের উচিত নয়। সবাই তার জন্য বরাদ্দকৃত সময় ও জীবিকা শেষ করেই দুনিয়া থেকে বিদায় নেবে । আদম সন্তান দুনিয়ায় আসার আগেই আল্লাহ তাআলা তার জীবিকা লিখে রেখেছেন। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেন, ‘তোমাদের প্রত্যেকে তার মায়ের পেটে ৪০ দিন শুক্র হিসেবে থাকে। অতঃপর সবাই রক্তপিণ্ড হয়ে যায়। অতঃপর মাংসপিণ্ডে রুপান্তরিত হয়। এরপর তার কাছে ফেরেশতা পাঠানো হয়, সে তার মাঝে রুহ সঞ্চার করে আর তাকে চারটি বিষয় লিখে দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয় : জীবিকা, তার সময় বা বয়স এবং সে কি সৌভাগ্যবান না দুর্ভাগ্যবান।

’ (বোখারি মুসলিম)।

এ হাদিস থেকে জানা যায়, আমাদের রিজিক আগে থেকেই নির্ধারিত । পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে ‘বলো, আমার প্রতিপালক তো তাঁর বান্দাদের মধ্যে যার প্রতি ইচ্ছা রিজিক বর্ধিত করেন এবং যার প্রতি ইচ্ছা সীমিত করেন। তোমরা যা কিছু ব্যয় করবে, তিনি তার প্রতিদান দেবেন। তিনিই শ্রেষ্ঠ রিজিকদাতা । ' (সুরা সাবা, আয়াত : ৩৯) 

সব মানুষের রিজিকদাতা মহান আল্লাহ। মহান আল্লাহ  সবার ব্যাপারেই সজাগ থাকেন। তিনি কারো কথা ভুলে যান না । রিজিকের এই ফয়সালা হয় আকাশে । ইরশাদ হয়েছে, ‌'আকাশে রয়েছে তোমাদের রিজিক ও প্রতিশ্রুত সবকিছু। নভোমণ্ডল ও ভূমণ্ডলের পালনকর্তার কসম, তোমাদের কথাবার্তার মতোই এটা সত্য। ' (সুরা জারিয়াত : ২১-২৩)।

জীবিকার চিন্তা মানুষকে গ্রাস করে ফেলেছে। দুর্বল করে রেখেছে তাদের বিবেক-বুদ্ধি। কিছু মানুষ তো অর্থনৈতিক উন্নতির কথা শুনলেই খুব উচ্ছ্বসিত হয়ে যায়। জীবনযাত্রার সমস্যা আর আর্থিক উত্থান-পতনে অস্থির হয়ে যায়। এ কথা যেন তাদের মনেই থাকে না যে মানব ও জিন জাতিসহ সব সৃষ্টির জীবিকার দায়িত্ব আল্লাহ তাআলা নিজেই গ্রহণ করেছেন। চাই তারা কাফের হোক বা মোমিন, দুর্বল হোক বা শক্তিশালী, ছোট হোক বা বড়। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, 'পৃথিবীতে যত বিচরণশীল প্রাণী আছে,  সবার জীবিকার দায়িত্ব আল্লাহর । তিনি জানেন,  তারা কোথায় থাকে এবং কোথায় সমাপিত হয়। সবকিছু এক সুবিন্যস্ত কিতাবে রয়েছে। ’ (সুরা হুদ, আয়াত : ৬)।  

তার অর্থ এই নয় যে ঘরে বসে থাকলেই রিজিক চলে আসবে। বরং হালাল রিজিকের অনুসন্ধান করাও ইবাদত । কিন্তু হাহুতাশ করা যাবে না। আল্লাহর রহমত থেকে নিরাশ হওয়া যাবে না। আসুন, সবাই সাময়িক কষ্টে থাকেলও যেন রিজিকের ওপর থেকে আস্থা হারিয়ে না ফেলি। ধৈর্য ও চেষ্টার ফলে আমাদের রিজিক আল্লাহ অবশ্যই আমাদের দেবেন।

Arefin.feni99@gmail.com


মন্তব্য