kalerkantho


জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ আগস্ট, ২০১৭ ১৫:৫৩



জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার সমালোচনা করার পর জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন হবে বলে দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোমবার ২১ আগস্টের অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাকে নিয়ে যেসব বক্তব্য দিয়েছেন, সেই প্রেক্ষাপটেই এ সংবাদ সম্মেলন।

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে নিলেও সেই সংশোধনী বাতিলের মাধ্যমে সামরিক শাসনের সময় সংবিধানে আসা সুপ্রিম জডিশিয়াল কাউন্সিলের বিধান ফিরিয়ে আনার রায় দিয়েছে আপিল বিভাগ। আগস্টের শুরুতে সেই রায় প্রকাশের পর থেকে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে চলছে পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনা। রায়ের পর্যবেক্ষণে প্রধান বিচারপতি সিনহা বাংলাদেশের রাজনীতি, সামরিক শাসন, নির্বাচন কমিশন, দুর্নীতি, সুশাসন ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতাসহ বিভিন্ন বিষয়ে পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেছেন, যা নিয়ে ক্ষমতাসীনরা তীব্র আপত্তি জানিয়েছে।

২১ আগস্ট উপলক্ষে সোমবার আওয়ামী লীগের আলোচনাসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথমবারের মতো ওই রায় নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বলেন। প্রধান বিচারপতির পর্যবেক্ষণ নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করে তিনি বলেন, অনেক অবান্তর কথা এবং স্ববিরোধী বক্তব্য সেখানে রয়েছে। প্রধান বিচারপতির দিকে ইংগিত করে সরকারপ্রধান ওই অনুষ্ঠানে বলেন, স্বাধীনতা ভালো, কিন্তু তা বালকের জন্য নয় বলে একটা কথা আছে। কাজেই ওই বালকসুলভ আচরণ আমরা আশা করি না।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা মঙ্গলবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। এটা সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক কথা, অশোভন কথা এবং সকল আইন-কানুন-শিষ্ঠাচার বহির্ভূত কথা। আলাল বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অবিলম্বে এই কথা প্রত্যাহার করে বিচার বিভাগের কাছে যদি ক্ষমা না চান, আপনি অন্তত আপনার ভোটারদের কাছে মাফ চান। তা না হলে যে কাজ-কর্ম আপনার সরকারের নিচের লেভেল থেকে শুরু হয়েছে, তার চাইতে বেশি অশোভন কথা আপনি গতকালকে বলেছেন।

 


মন্তব্য