kalerkantho


ভেষজ দাওয়াই

শীতকালে ঠাণ্ডাজনিত সর্দি-কাশির দাওয়াই

শীতকালে প্রায় সবারই সর্দি-কাশিজনিত সমস্যায় পড়তে হয়, বিশেষ করে শিশু ও বৃদ্ধদের। ঠাণ্ডাজনিত সর্দি-কাশি থেকে মুক্তির জন্য ভেষজ দাওয়াই দিলেন তিব্বিয়া হাবিবিয়া কলেজের অধ্যক্ষ হাকিম ফেরদৌস ওয়াহিদ

৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শীতকালে ঠাণ্ডাজনিত সর্দি-কাশির দাওয়াই

► শিশুদের কাশি ও ঠাণ্ডাজনিত সমস্যায় ২৫০ মিলি খাঁটি সরিষার তেলে ৫ কোয়া রসুন ছেঁচে তাতে সামান্য আদা ও একটি আকন্দপাতা দিয়ে জ্বাল দিয়ে কালচে রং ধারণ করলে ওই তেল নামিয়ে কুসুম গরম থাকা অবস্থায় বুকে মালিশ করুন। কাশিতে দারুণ আরাম মিলবে। এটি বড়রাও ব্যবহার করতে পারেন।

► তুলসীপাতার রস ১ চা চামচ এবং খাঁটি মধু ১ চা চামচ একত্রে মিশিয়ে হালকা গরম করে শিশুদের চেটে খাওয়ালে সর্দি-কাশিতে উপকার মেলে। বয়স্কদের ক্ষেত্রে মাত্রা ৩ গুণ দিতে হবে।

► আদার রস ১ চা চামচ, মধু ১ চা চামচ হালকা গরম করে শিশুদের চেটে খাওয়ালে উপকার পাওয়া যায়। বড়দের জন্য পরিমাণ বাড়াতে হবে।

► কাবাবচিনি চূর্ণ ১ চা চামচ, মধু ২ চা চামচ একত্রে মিশিয়ে দিনে দুইবার সেবন করলে কাশিতে উপশম পাওয়া যায়।

► বাসকপাতা ৬ গ্রাম, থানকুনিপাতা ৩ গ্রাম একত্রে ১২০ মিলিলিটার পানিতে সিদ্ধ করে ছেঁকে তাতে মধু মিশিয়ে দিনে দুই-তিনবার সেবন করলে কাশিতে আরাম পাবেন।

► যষ্টিমধু চূর্ণ দিনে তিন-চারবার চুষে খেলে কাশি উপশম হবে।

► তিসি ২ গ্রাম পরিমাণ নিয়ে হালকা আঁচে ভেজে চূর্ণ করে পরিমাণমতো মধু মিশিয়ে দিনে দুই-তিনবার চেটে খেলে সর্দি-কাশি নিরাময় হয়।

► কালিজিরা চূর্ণ ১ চা চামচ এবং ২ চা চামচ মধুর সঙ্গে মিশিয়ে সকাল-সন্ধ্যায় ৫-৭ দিন সেবন করলে কাশিতে উপকার হয়।

► মোটাবচ ১ গ্রাম দিনে দুই-তিনবার চুষে খেলে বয়স্কদের কাশি উপশম হয়।

► মসলাযুক্ত সুজির হালুয়া—সুজি, গাওয়া ঘি, কাবাবচিনি, লং, এলাচ, তেজপাতা, দারচিনি, গোলমরিচ ও চিনি—সব উপাদান পরিমাণমতো নিয়ে একত্রে হালুয়া রান্না করে পরোটার সঙ্গে সকালে ও রাতে খেলে ঠাণ্ডায় আরাম মেলে।

► রেশমের গুটি ৫ গ্রাম কেটে পরিষ্কার করে ২ কাপ গরম পানিতে ১২ ঘণ্টা ভিজিয়ে জ্বাল দিয়ে অর্ধেক হলে ছেঁকে ২ চা চামচ মধু মিশিয়ে সকাল-সন্ধ্যা সেবন করলে কাশি সেরে যাবে।


মন্তব্য