kalerkantho


আপনার শিশু

ওর ভালোর জন্য...

অন্য মৌসুমের চেয়ে শীতে শিশুর বাড়তি যত্ন নিতে হয়। এ সময় শিশুর পরিচর্যায় করণীয় জানালেন শোভন মেকওভার স্কিন স্টুডিওর স্বত্বাধিকারী শোভন সাহা। গ্রন্থনা করেছেন পিন্টু রঞ্জন অর্ক

১৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ওর ভালোর জন্য...

দরকারমতো গরম কাপড়

শীতের এই সময়টায় খেয়াল রাখতে হবে কোনোভাবেই যেন শিশুর ঠাণ্ডা না লাগে। শিশুকে ঠাণ্ডা পরিবেশে রাখা যাবে না। স্যাঁতসেঁতে ঘরে রাখাও ঠিক হবে না। প্রয়োজনমতো ওকে গরম কাপড় পরাতে হবে। শিশুকে যদি উলের কাপড় পরানো হয়, তাহলে বাড়তি সতর্কতা জরুরি। উলের পোশাক নিয়মিত শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে দিতে হবে। কারণ অন্যান্য কাপড়ের তুলনায় উলের কাপড়ে ধুলাবালি বেশি জমে। ফলে নিয়মিত পরিষ্কার না করলে এই ধুলাবালি থেকেই শিশুর সর্দি-কাশির মতো সমস্যা হতে পারে।

 

গোসলে ঈষদুষ্ণ পানি

শিশুকে ঈষদুষ্ণ পানি দিয়ে নিয়মিত গোসল করান। নিয়মিত সম্ভব না হলে এক দিন অন্তর গোসল করাতে পারেন। গোসলের সময় নরম কাপড়ে বেবি সোপ মিশিয়ে ওর শরীর আলতো করে ঘষে দিন। এতে করে মৃত কোষগুলো চামড়ায় লেগে থাকবে না। শিশু চমমনে অনুভব করবে। খুশকি প্রতিরোধে এক দিন অন্তর বেবি শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। বেবি শ্যাম্পু ব্যবহারের সময় খেয়াল রাখতে হবে, যিনি শ্যাম্পু লাগাবেন তাঁর হাতের নখ যেন বড় না হয়। কারণ নখ বড় হলে শিশুর মাথার চামড়ায় আঁচড় লাগতে পারে। গোসলের পর ভালো করে শরীর মুছে দেবেন। এরপর আলতো করে বেবি লোশন লাগাবেন। তেলজাতীয় কিছু লাগাবেন না।

 

ডায়াপারে সতর্কতা

অনেকে শিশুকে রাতের বেলা ডায়াপার পরিয়ে শোয়ান। তবে এ ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে। কারণ ডায়াপার অনেক ধরনের হয়। কোনোটার শোষণ ক্ষমতা বেশি, কোনোটার কম থাকে। ফলে রাতের বেলা ডায়াপারের মধ্যেই যদি শিশু পায়খানা-প্রস্রাব করে এবং সেটা যদি সঙ্গে সঙ্গে পরিষ্কার করা না হয়, তাহলে হিতেবিপরীত হতে পারে। তাই ডায়াপার পরানো অবস্থায় যদি পায়খানা-প্রস্রাব করে, তাহলে ডায়াপার খুলে বেবি এন্টিসেপটিক ওয়েট টিস্যু দিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করে দিতে হবে।

 

মায়ের কাছেই থাকুক

এ সময় শিশুকে দোলনায় বা আলাদা মশারির নিচে না রেখে মায়ের  কোল ঘেঁষে শোয়ান। এতে শিশু উষ্ণ থাকবে, মায়ের বুকের দুধ খাওয়াতে সুবিধা হবে। শিশুকে নরম কাপড়ের জুতা পরানোর অভ্যাস করুন। শোয়ানোর সময় মোজা পরিয়ে শোয়ালে ভালো হয়। যদি পরিবারের কোনো সদস্য বা কোনো আত্মীয়ের সর্দি-কাশি, জ্বর ইত্যাদি থাকে, তবে তারা মা ও শিশুর কাছে আসা থেকে বিরত থাকুন। জনবহুল জায়গা যেমন—মেলা, উত্সবের মতো অনুষ্ঠানে শিশুদের নিয়ে গেলে অবশ্যই বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করুন।

 

গরম কাপড় রোদে শুকান

শীতের সময় শিশুর লেপ, তোশক, কম্বল, চাদর ইত্যাদি ঘরের মধ্যে না শুকিয়ে অবশ্যই রোদে শুকাবেন। রোদ থেকে তোলার পর তা ঝেড়ে ঘরে রাখুন। আর ধুলাবালি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য এসবের ওপর কাপড়ের কভার ব্যবহার করা সবচেয়ে ভালো। ঘুমানোর সময় শিশুর নাক বা মুখের ওপর কাপড়, লেপ, কম্বল ইত্যাদি দেবেন না। কারণ নাক বা মুখের ওপর এসব থাকলে শিশুর শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা হতে পারে।


মন্তব্য