kalerkantho


কাতারের সঙ্গে ১৫ বছরের এলএনজি চুক্তি সই

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৮:৩৬



কাতারের সঙ্গে ১৫ বছরের এলএনজি চুক্তি সই

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিতকল্পে বাংলাদেশ ব্যাপকভাবে বিনিয়োগের পরিকল্পনা করছে। জ্বালানি চাহিদা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বার্ষিক ৭.৫ মিলিয়ন টন সক্ষমতার দুটি ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে। স্থলভিত্তিক এলএনজি  টার্মিনাল নির্মাণসহ এলএনজি ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন এবং সরবরাহ-যোগান গ্যাপ দ্রুত পূরণকল্পে ছোট এলএনজি ভ্যাসেল হতেও এলএনজি সরবরাহের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।  

প্রতিমন্ত্রী সোমবার কাতারের দোহায় শেরাটন হোটেলের সালওয়া হলে দীর্ঘমেয়াদি ‘এলএনজি বিক্রয় এবং ক্রয় চুক্তি’ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বক্তব্যকালে এসব কথা বলেন।

নসরুল হামিদ বলেন, বিশ্বে এলএনজি উৎপদনে কাতার অন্যতম শীর্ষস্থান দখলকারি এবং সুনাম অর্জনকারী দেশ। আমাদের পাওয়ার সিস্টেম মাস্টার প্ল্যান হালনাগাদ করে এলএনজি ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দেশের তৈরি পোশাক খাতে রপ্তানির গতি অবারিত রাখতে নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ নিশ্চিত করা অপরিহার্য। প্রায় ২৫০০ শিল্প কারখানা জ্বালানির জন্য অপেক্ষমান। বাংলাদেশ তাই নানা উৎস থেকে এলএনজিসহ প্রাথমিক জ্বালানি অন্বেষণ করছে।  

বার্ষিক ২ দশমিক ৫ টন এলএনজি সরবরাহের লক্ষ্য নিয়ে ১৫ বছর মেয়াদি এ চুক্তিতে পেট্রোবাংলার পক্ষে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়েজুল্লাহ এবং রাজগ্যাসের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হামাদ রশিদ আল-মহান্নাদি স্বাক্ষর করেন।

কাতারের জ্বালানি ও শিল্পমন্ত্রী ড. মোহাম্মদ বিন সালাহ আল সাদা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে জ্বালানি সহযোগিতা অব্যাহত রাখা হবে। প্রশিক্ষণসহ মানবসম্পদ উন্নয়নেও দু’দেশ এক সঙ্গে কাজ করতে পারে।  

এ সময় অন্যান্যের মাঝে কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আশুদ আহমেদ, কাতার পেট্রোলিয়ামের প্রেসিডেন্ট সাদ শেরিদা আল কাবি ও আরপিজিসিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. কামরুজ্জামান  উপস্থিত ছিলেন।  


মন্তব্য