kalerkantho


বাংলাদেশের বিনিয়োগে চীনা ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসার আহবান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:১৯



বাংলাদেশের বিনিয়োগে চীনা ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসার আহবান

চীনের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি ১০ গুণেরও বেশী। বাংলাদেশ গত অর্থবছরে (২০১৬-১৭) চীনে ৯৪৯ দশমিক ৪১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য রপ্তানি করলেও একই সময়ে চীন থেকে ১০ হাজার ১২৮ দশমিক ১ মিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করেছে।

আজ রবিবার ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (এফবিসিসিআই) নেতৃবৃন্দের সাথে চীনের জিলিন প্রদেশের ২১-সদস্যের একটি বাণিজ্য প্রতিনিধি দলের এক বৈঠকে এফবিসিসিআই’র পক্ষ থেকে এ তথ্য তুলে ধরা হয়।

ফেডারেশন ভবনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে এফবিসিসিআই’র সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) চীনের বাণিজ্যিক প্রতিনিধিদলকে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের আকর্ষণীয় সুযোগ-সুবিধা প্রদানের বিষয়টি অবহিত করেন এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগে এগিয়ে আসার জন্য চীনা ব্যবসায়ীদের আহবান জানান।

বিশেষ করে বাংলাদেশের অবকাঠামো খাত, যন্ত্রপাতি তৈরি, হালকা প্রকৌশল শিল্প, ইলেক্ট্রনিক্স ও বস্ত্র খাতে চীনের ব্যবসায়ীরা বিনিয়োগ করতে পারেন বলে তিনি মন্তব্য করেন।  

বাংলাদেশ ‘আসিয়ানভুক্ত দেশসহ দক্ষিণ-এশীয় দেশগুলোর প্রবেশদ্বার উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ এবং চীন যৌথভাবে এ ভৌগোলিক অবস্থানের অপার সম্ভাবনা কাজে লাগাতে পারে।  

এ সময় ২১-সদস্যবিশিষ্ট চীনা বাণিজ্য প্রতিনিধি দলের নেতা ও জিলিন প্রদেশের বাণিজ্য বিভাগের উপ-পরিচালক সান গুওহুয়া বলেন, চীন এবং বাংলাদেশের মধ্যে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও বাণিজ্য অনেকগুণ বেড়েছে।  

তিনি জিলিনের কৃষি এবং শিল্প খাতে বিশেষভাবে গাড়ি নির্মাণ শিল্প এবং ইলেক্ট্রনিক্স খাতে বিনিয়োগ করার জন্য বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান।  

চীনা প্রতিনিধিদলে রয়েছেন, জিলিন প্রদেশের কৃষি, গাড়ি নির্মাণ, সৌর বিদ্যুৎ প্যানেল এবং চিকিৎসা সরঞ্জাম শিল্পের প্রতিনিধিবৃন্দ।  

এফবিসিসিআই’র প্রথম সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, সহ-সভাপতি মো. মুনতাকিম আশরাফ, পরিচালকবৃন্দ এবং এফবিসিসিআই অধিভুক্ত খাতভিত্তিক বিভিন্ন সদস্য সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ বৈঠকে অংশ নেন।


মন্তব্য