kalerkantho


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

ছাত্রলীগের সিনিয়র নেতাকে জুনিয়র কর্মীর মারধর

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৫ মে, ২০১৮ ০২:৪৪



ছাত্রলীগের সিনিয়র নেতাকে জুনিয়র কর্মীর মারধর

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই জুনিয়রকর্মীর বিরুদ্ধে এক সিনিয়র নেতাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলে মারধরের এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার মো. আব্দুর রাকিব বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগ থেকে মাস্টার্স শেষ করেছেন। বর্তমানে তিনি এমফিল করছেন। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সদস্য তিনি। 

অভিযুক্তরা হলেন মো. অভি সরকার ও মো. কাউসার। তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাদ্দাম হোসেনের অনুসারী এবং ভাষা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। 

জানা যায়, রবিবার রাতে রাকিবের রুমমেট জাহিদের বন্ধু অভি ভুলবশত রাকিবের জুতা নিয়ে চলে যায়। রাতেই অভিকে ফোন করে জাহিদ জুতা ফিরিয়ে দিতে বলেন। গতকাল সকালে রাকিবের কক্ষের সামনে অভি জুতা রেখে যান। বিকেলে অভি ও কাউসার আবার ওই কক্ষে গেলে রাকিব ও অভির মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে অভি, কাউসারসহ কয়েকজন রাকিবকে মারধর করেন। পরে সহসভাপতি সাদ্দাম এসে তাঁদের থামানোর চেষ্টা করেন। 

মারধরের শিকার রাকিব বলেন, ‘সকালে জুতা ফিরিয়ে দেওয়ার পর বিকেলে অভি আবার আমার রুমে আসে। এ সময় কেন সে জুতা নিয়েছিল জানতে চাইলে সে ও তার বন্ধুরা মিলে আমাকে মারধর করে।’

এ বিষয়ে সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘রাকিব আর অভির মাঝে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে সামান্য কথা-কাটাকাটি হয়েছিল। আমি গিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দিই। কোনো মারধরের ঘটনা ঘটেনি।’


মন্তব্য