kalerkantho


বরগুনায় ঠিকাদারের বিরুদ্ধে মামলা

বরগুনা প্রতিনিধি    

১৩ আগস্ট, ২০১৭ ২১:২৮



বরগুনায় ঠিকাদারের বিরুদ্ধে মামলা

বিল না দেয়ায় অন্ডকোষ চেপে ধরে মারপিটের অভিযোগ এনে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন বরগুনার বিসিক শিল্প নগরীর প্রকল্প পরিচালক ও শিল্প সহায়ক কেন্দ্রের উপব্যবস্থাপক। আজ রবিবার বিকেলে বরগুনা থানায় এ মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী বিসিক কর্মকর্তা গোবিন্দ চন্দ্র সরকার।  

মামলার বিবরণীসূত্রে জানা গেছে, গতকাল শনিবার বিকেলে বরগুনা সদর উপজেলার ক্রোক এলাকায় বিসিক শিল্প নগরীর মধ্যে মাটি ভরাট কাজের পরিমাপ করার সময় তার উপরে ক্ষিপ্ত হয়ে সংশ্লিষ্ট ঠিকাকাদার শহিদুল ইসলাম পলাশ তাকে মারধর করেন।  

এসময় হত্যার উদ্যেশ্যে তার অন্ডকোষ চেপে ধরে তাকে মারপিট করে আহত করেন শহিদুল ইসলাম পলাশ। মারধরের একপর্যায়ে তার চিৎকার শুনে বিসিক শিল্প নগরীর অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা ঘটনাস্থলে এসে তাকে উদ্ধার করেন।  

ভুক্তভোগী কর্মকর্তা গোবিন্দ চন্দ্র সরকারের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বরগুনা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বিসিক শিল্পনগরী বরগুনার মাটি ভরাট কাজের ঠিকাদার শহিদুল ইসলাম পলাশ বরগুনার ক্রোক এলাকায় বিসিক শিল্প নগরীর নির্ধারিত সীমানায় মাটি ভরাটের কাজ করেছেন।  

নিয়মানুযায়ী তিনি আংশিক বিল নিয়েছেন। বাকী বিলের জন্যে তিনি আবেদন করেছেন। চুড়ান্ত অনুমোদনের জন্যে তার আবেদনটি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। কর্তৃপক্ষের চুড়ান্ত অনুমোদন না পাওয়ায় বিলম্বের জন্যে ঠিকাদার শহিদুল ইসলাম পলাশ তাকে দায়ী করে আসছিলেন।  

গোবিন্দ চন্দ্র সরকার আরও বলেন, এর আগেও তার অফিসে দু’দিন এবং বাসায় একদিন সরাসরি উপস্থিত হয়ে ঠিকাদার শহিদুল ইসলাম পলাশ তাকে গালিগালাজ ও মানসিক নির্যাতন করেছেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ঠিকাদার ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শহিদুল ইসলাম পলাশের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।  

বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহমেদ বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী কর্মকর্তা বরগুনা থানায় মামলা করেছেন। এ বিষয়ে যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বরগুনার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. নুরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি তিনি অবগত আছেন। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে মামলা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই বরগুনার পুলিশ সুপারের সাথে আলোচনা করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।  


মন্তব্য