kalerkantho


লিবিয়ায় বাংলাদেশীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে আটক ১

শরীয়তপুর প্রতিনিধি    

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২২:১৫



লিবিয়ায় বাংলাদেশীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে আটক ১

প্রতীকী ছবি

লিবিয়ায় ৬ বাংলাদেশীকে আটক রাখা ও মুক্তিপণের টাকা আদায় করার অভিযোগে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বাংলাবাজার থেকে সময় সুমন ছৈয়াল (৩০) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‍্যাব-৮। আজ বুধবার সন্ধা সারে ৬টার দিকে তাকে আটক করা হয়।

সুমন ছৈয়াল স্থানীয় বাংলাবাজারে মুদি দোকানদার ছিলেন। এসময় তার কাছ থেকে ৩হাজার ইউরোসহ বাংলাদেশী ১৪ লাখ ৪৯ হাজর ৫০০টাকা ও ২৭টি মোবাইল উদ্ধার করে র‍্যাব।

র‍্যাব ও লিবিয়া প্রবাসী স্বজনরা জানায়, মাদারীপুর জেলার রাজৈর থানার গবিন্দপুর গ্রামের ইমন আহাম্মেদ (২৭), একই গ্রামের জুয়েল বেপারী (২৫) ও জুয়েল শেখ (৩০) সহ মোট ৬ জন লিবিয়ায় ছিলেন। বেশ কয়েকদিন যাবৎ তাদের কোন যোগা যোগ ছিলনা পরিবারের সাথে। কয়েকদিন আগে পরিবারের স্বজনদের কাছে লিবিয়া থেকে একটি ফোন আসে যে তারা অপহরণের শিকার হয়েছে। জন প্রতি ৫ লাখ করে টাকা দাবি করে অপহরণকারিরা। টাকা সুমন ছৈয়ালের কাছে দিলে তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়।  

অপহরণের শিকার ওই যুবকদের বাচাতে অপহরণ চক্রের সদস্যদের সাথে মুক্তিপণ নিয়ে দর কশা কশি শুরু করে তাদের পরিবার। এক পর্যায়ে জন প্রতি তিন লাখ টাকা করে দিতে শিকার হয় অপহরণের শিকার ইমন, জুয়েল বেপারী ও জুয়েল শেখের পরিবার।

গত কাল মঙ্গলবার সুমন ছৈয়ালের কাছে ৯ লাখ টাকা দিয়ে যায় তাদের স্বজনেরা।  

কিন্তু তাদের মুক্তি না দিয়ে আরো এক লাখ টাকা দাবি করে চক্রটি। আজ বুধবার আরো একলাখ টাকা নিয়ে সুমনকে দিতে আসলে খবর পায় র‍্যাব। বুধবার সন্ধায় মুক্তিপনের টাকা নেওয়ার সময় র‍্যাব সুমনকে আটক করে। পরে অভিযান চালিয়ে সুমনের দোকান থেকে তিন হাজার ইউরোসহ নগদ ১৪ লাখ ৪৯ হাজর ৫০০টাকা ও ২৭টি মোবাইল উদ্ধার করে। আটককৃত সুমনকে র‍্যাব-৮ এর মাদারীপুর ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।  
 
মাদারীপুর র‍্যাব-৮ ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মোঃ রাকিবুজ্জামান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি মুক্তিপনের টাকার লেনদেন হচ্ছে। পরে এসে মুক্তি পনের টাকা নেওয়ার সময় সুমনকে আটক করি। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা নিয়ে নিয়মিত মামলা রজু করা হবে বলে জানিয়েছেন মেজর মোঃ রাকিবুজ্জামান।


মন্তব্য