kalerkantho


পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া খনির কাজ বন্ধ

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি    

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২১:৪৬



পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া খনির কাজ বন্ধ

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া খনির মহাব্যবস্থাপকের (অপারেশন) অপসারণ দাবিতে আজ শনিবার সকাল থেকে সব ধরনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জিটিসি। এটি ঠিকাদারের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তির সরাসরি লঙ্ঘন বলে জানিয়েছে খনি কর্তৃপক্ষ।

খনি কর্তৃপক্ষ বলছে, জিটিসি ২০১৪ সালে খনির উৎপাদন, ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনার দায়িত্ব নেয়। ওই সময় খনি বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান নামনাম কর্তৃক প্রস্তুতকৃত খনির উন্নয়ন ও উৎপাদন ব্যবস্থাপনার একটি নকশা  জিটিসিকে সরবরাহ করা হয়। চুক্তি অনুযায়ী ওই ডিজাইন বা খনি কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত পরিবর্তিত নকশায় খনি উন্নয়ন করার কথা। কিন্তু খনি কর্তৃপক্ষের কোনো অনুমোদন ও মতামত ছাড়া নকশা পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করে জিটিসি খনি উন্নয়ন কাজ শুরু করে যাচ্ছিল। এতে খনির মহাব্যবস্থাপক (অপারেশন) ও প্রকল্প পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ার টু কন্ট্রাক্ট) মীর আবদুল হান্নানের সঙ্গে জিটিসির মতবিরোধ দেখা দেয়। জিটিসি বেশ কিছুদিন ধরে মীর আবদুল হান্নানকে ইঞ্জিনিয়ার টু কন্ট্রাক্টের দায়িত্ব থেকে অপসারণের দাবি জানিয়ে আসছিল। এর জের ধরে জিটিসি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ প্রায় ৮০০ খনি শ্রমিককে অনির্দিষ্টকালের ছুটিতে পাঠিয়ে আজ শনিবার সকালে খনি গেইটে নোটিশ টাঙ্গিয়ে দিয়ে সব ধরনের কাজ বন্ধ করে দেয়।

মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদ খান জানান, জিটিসি একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। কোনো অবস্থাতেই কাজ বন্ধ করতে পারে না।

এটা জিটিসির সঙ্গে খনি কর্তৃপক্ষের সম্পদিত চুক্তির সরাসরি লঙ্ঘন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ২ সেপ্টেম্বর মধ্যপাড়া খনির উৎপাদন, রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালন ঠিকাদার হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয় বেলারুশের জেএসসি ট্রেস্ট সকটোস্ট্রয় ও দেশীয় প্রতিষ্ঠান জার্মানিয়া করপোরেশন লিমিটেড নিয়ে গঠিত জার্মানিয়া ট্রেস্ট কনসোর্টিয়ামকে (জিটিসি)। জিটিসি ২০১৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি দায়িত্ব নেয় এবং ২৪ ফেব্রুয়ারি  পাথর উৎপাদন শুরু করে। জিটিসি ১৭১.৮৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিময়ে ছয় বছরে ৯২ লাখ (৯.২ মিলিয়ন টন) টন পাথর উত্তোলন করবে।


মন্তব্য