kalerkantho


সিডরের বয়স এখন ১০, তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:১৬



সিডরের বয়স এখন ১০, তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র

ছবি: কালের কণ্ঠ

২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর প্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড় সিডরের দিন জন্ম হয়েছিল এ ছেলেটির এ জন্য ঝড়ের নামানুসারে তার নাম রাখা হয় সিডর সরকার। তার বাবা-মা এ নামটি রাখে।

তার বাবার নাম জর্জি সরকার মা সাথী সরকার। মোংলা জয়মনি রাস্তার পাশে চিলা গ্রামে সিডরের বাবার বাড়ি। আড়াইশ কিলোমিটার বেগে আসা সিডরের তাণ্ডব সইতে না পেরে সিডরের বাবা গর্ভাবস্থায় তার (সিডরের) মাকে নিয়ে এলাকার সেন্ট মেরিস গীর্জায় আশ্রায় নেয়। ওই রাতে সিডরের মায়ের প্রসব বেদনা শুরু হলে ভোর ৪টার সময় ওই আশ্রয় কেন্দ্রে জন্ম নেয় ফুটফুটে শিশুটি।

গর্ভবতী মা প্রসব বেদনা নিয়ে তার গর্ভজাত অনাগত শিশুকে বাঁচানোর জন্য আশ্রয় কেন্দ্রে আসেন। ঝড় থেমে যাওয়ার পর বহু মানুষ সিডরকে দেখতে আসে। অনেকে অনেক সাহায্য সহযোগিতা করেন। অনেকে আবার অনেক সাহায্য সহযোগিতার আশ্বাসও দেন। দেখতে দেখতে ১০ বছরে পা দিল সিডর।

সে এখন স্থানীয় দিশারী ফ্রি স্কুলের ৩য় শ্রেণীর ছাত্র। চরম দারিদ্র্যতাকে সঙ্গে নিয়ে সে বেড়ে উঠছে। তার লেখাপড়ার খরচ চালাতে তার পরিবার হিমশিম খাচ্ছে।

সিডর খুব ভালো ছাত্র, সে ভালো লেখাপড়া করে বলে জানায় তার বন্ধু সহপাঠি ভক্সপপ। প্রকৃতির চরম রুদ্ররোষের দিনে জন্ম নেয়া সিডর যেন প্রকৃতির সেই দুরন্তপনা সঙ্গে নিয়ে বেড়ে চলেছে, সিডর অসম্ভব মেধাবী কিন্তু খুব দুরন্ত। সে এখনই কম্পিউটার শিখতে চায়। সিডরকে সঠিক পরিবেশে শিক্ষার ব্যবস্থা করতে পারলে সে সত্যিকার মানুষ হিসাবে গড়ে উঠবে বলে ধারণা তার শিক্ষক সিংকজয় নাথ দেবের।

বর্তমানে খুব কষ্টে আছে সিডরের পরিবার। ঝড়ের রাতে আশ্রয় কেন্দ্রে একটি শিশুর জন্ম হয়েছে শুনে সিডরকে দেখতে পরদিন সকালে সেখানে শত শত মানুষের ঢল নামে। সিডরের সময় ও পরে অনেকে সিডরকে সাহায্য-সহযোগিতা করতে চাইলেও তা কেউ করেনি।


মন্তব্য