kalerkantho


মাদারীপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, আটক ১

মাদারীপুর প্রতিনিধি    

৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৮:৪৯



মাদারীপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, আটক ১

মাদারীপুর সদর উপজেলার দুধখালী ইউনিয়নের উত্তর দুধখালী গ্রামে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দ্বিতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জয় চক্রবর্তী (৩২) নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে আজ শুক্রবার মাদারীপুর সদর থানায় মামলা হয়েছে।

পুলিশ, স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার দুধখালী ইউনিয়নের উত্তর দুধখালী গ্রামের বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ওই  ছাত্রী বিকেলে বাড়ির পাশে বাগানে খেলা করতে যায়। সন্ধ্যায়  প্রতিবেশী নিতাই চক্রবর্তীর ছেলে জয় চক্রবর্তী (৩২) শিশুটিকে চকলেট দেওয়ার কথা বলে খালি ঘরে ডেকে নিয়ে আসে। এরপর  শিশুটিকে সে ধর্ষণ করে সেখানে।

এ সময় শিশুটির চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে। জয় চক্রবর্তী পালিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী তাকে ধরে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। ঘটনার সময় তার স্ত্রী, সন্তান বাড়িতে ছিল না। অভিযুক্ত ধর্ষণকারী জয় চক্রবর্তী কালির বাজারে মুদি দোকানদার।

শিশুটির বাবা বলেন, 'আমি গরিব মানুষ। আমার এতো  ছোট মেয়েকে এভাবে ঘরে ডেকে নিয়ে লম্পট যা করেছে তা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। আমরা মেয়েকে যখন উদ্ধার করি তখন ওর গোপন স্থান দিয়ে রক্ত ঝরছিল। পরে চিকিৎসার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি। আমি ওই লম্পটের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

শিশুটির বাবা আরো বলেন, 'বড় কষ্টের বিষয় ওর এক মেয়ে আমার এই মেয়ের সঙ্গে একত্রে স্কুলে পড়াশুনা করে। মেয়ের মতো একটি ছোট শিশুর সঙ্গে এমন আচরণ করতে পারে আমি ভাবতে পারছি না। সরকারের কাছে দাবি ওর যেন কঠোর শাস্তি হয়।'

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. শশাংক চন্দ্র বলেন, 'শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত একটি শিশু রাতে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তার চিকিৎসা চলছে। গাইনি চিকিৎসক শিশুটিকে দেখেছেন। প্রাথমিকভাবে আলামত সংগ্রহ করেছেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর বোঝা যাবে প্রকৃত ঘটনা কী।' 

মাদারীপুর মডেল থানার ওসি মো. কামরুল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, 'শিশুটির বাবা শুক্রবার থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। যদিও ধর্ষণকারীকে আমরা ঘটনার পরপরই আটক করি।'  


মন্তব্য