kalerkantho


কুমিল্লায় 'বন্দুকযুদ্ধে' ডাকাত নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা    

৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৩:৫৭



কুমিল্লায় 'বন্দুকযুদ্ধে' ডাকাত নিহত

কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আবু তাহের (৩০) নামের এক ডাকাত নিহত হয়েছে। গতরাত আড়াইটার দিকে জেলার সদর উপজেলার আলেখারচর সাবুরিয়া সিএনজি পাম্পের পেছনে গোমতি নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আবু তাহের (২৮) কুমিল্লা নগরীর সংরাইশ এলাকার আবুল খায়েরের ছেলে।

ডিবি পুলিশের দাবি, বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় অস্ত্রসহ মো. গিয়াস উদ্দিন ওরফে লিটন (৩৫) নামের আরো এক ডাকাতকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তলসহ দেশি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একজন এসআইসহ তিনজন।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, উপজেলার আলেখারচর সাবুরিয়া সিএনজি স্টেশনের পেছনে গোমতি নদীর বাঁধে একটি সংঘবদ্ধ ডাকাতদল ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে- এমন খবর পেয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল সেখানে পৌঁছায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে এ সময় ডাকাতদল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। জবাবে পুলিশও ডাকাতদের লক্ষ্য করে ৪৯ রাউন্ড শটগানের ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে। এতে ঘটনাস্থলেই ডাকাতদলের প্রধান আবু তাহের গুলিতে আহত হন। তাকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে আরো বলা হয়, অভিযানে অংশ নেওয়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই সহিদুল ইসলাম, এএসআই শাহীন ও কনস্টেবল ইসমাঈল আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ মো.  গিয়াস উদ্দিন ওরফে লিটন (৩৫) নামের এক ডাকাতকে গ্রেপ্তার করে। তিনি কোতোয়ালি মডেল থানাধীন চানপুর এলাকার মো. হুমায়ুন মিয়ার ছেলে। ঘটনাস্থল থেকে দুই রাউন্ড গুলিসহ একটি পিস্তল এবং বেশ কিছু দেশীয় ধারালো অস্ত্র ও তিনটি কালো মুখোশ উদ্ধার করা হয়েছে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি এ কে এম মনজুর আলম জানান, নিহত ডাকাত আবু তাহেরের নেতৃত্বেই নগরীসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ডাকাতি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছিলো। তার বিরুদ্ধে একাধিক ডাকাতি, ছিনতাই মামলা তদন্তাধীন ও আদালতে বিচারাধীন। এ ঘটনায় এসআই মো. নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় এজাহার দায়ের করেছেন।


মন্তব্য