kalerkantho


এমান শীতত হামরা ক্যামন করি বাঁচমো

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৯:৪৫



এমান শীতত হামরা ক্যামন করি বাঁচমো

ফাইল ছবি

সন্ধ্যা হতে না হতেই সুনসান হয়ে পড়ছে শহর। দোকান পাট, ব্যবাসা প্রতিষ্ঠান সব বন্ধ হয়ে পড়ছে। শুধু মাত্র শীত বস্ত্রের দোকানগুলো খোলা থাকছে। গত ৮দিন থেকে এমন অবস্থা চলে আসছে দিনাজপুরের পার্বতীপুর পৌর শহরের। ঘন কুয়াশা আর শৈত্যপ্রবাহে এখানকার জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে। নিম্ন আয়ের মানুষ আর রেলস্টেশন, টার্মিনালে ভাসমান মানুষদের একেবারে জবুথবু অবস্থা। 

উপজেলার খোলাহাটি এলাকার বালা পাড়া গ্রামের দিনমজুর আবুজর (৩৫) আজ রবিবার দুপুরে কালের কন্ঠকে বলেন, শীততো পতি (প্রতি) বছর পড়ে। এবার মনে হয় খুব বেশি পইড়ছে (পড়ছে) বাহে। এমান শীতত হামরা (শীতে আমরা) ক্যমন করি বাঁচমো বলতো (বলেনতো)।

মন্মথপুরের ভবের বাজার এলাকার খাইরুল ইসলাম (৫৮) বলেন, আমি গরীব মানুষ। আমার কোন জমি জমা নাই। নদীতে মাছ ধরি, সেই মাছ বেঁচে সংসার চালাই। এখনতো নদীতে পানি নাই, মাছও নাই। শীতের কাপড় কেনার টাকা কোথায় পাই। এদিকে, শৈত্য প্রবাহ শুরু হওয়ার পর থেকে শীত বস্ত্রের দামও বেড়ে গেছে দ্বিগুন। 


মন্তব্য