kalerkantho


নোয়াখালীতে কালের কণ্ঠ'র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী    

১১ জানুয়ারি, ২০১৮ ১২:৪৭



নোয়াখালীতে কালের কণ্ঠ'র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

জন্মদিনের কেককাটা, শোভাযাত্রা ও আলোচনাসভার মধ্য দিয়ে নোয়াখালীতে কালের কণ্ঠ'র অষ্টম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। সকালে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রা উদ্বোধন করেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম ওয়াহিদুজ্জামান।

শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। পরে উপাচার্যের কার্যালয়ে জন্মদিনের কেক কাটেন উপাচার্য প্রফেসর ড. এম ওয়াহিদুজ্জামান। পরে সেখানে আলোচনসভা অনুষ্ঠিত হয়।

কালের কণ্ঠ নোয়াখালী শুভসংঘের সভাপতি আনিসুর রসুলের  সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম সোহেলের সঞ্চালনায় আলোচনাসভায় কালের কণ্ঠ শুভসংঘের সহসভাপতি মাহবুব শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন। 

আরো পড়ুন উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী 

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত থেকে কালের কণ্ঠ'র উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করেন নোবিপ্রবির রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক, ডিন প্রফেসর আতিকুল ইসলাম নোবিপ্রবির শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. আবদুল্লাহ আল মামুন, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, জনসংযোগ পরিচালক ড. আনোয়ার হোসেন, পরিচালক আইআইটি মো. নুরুজ্জামান ভূঁইয়া প্রমুখ। পরে তিনি কালের কণ্ঠ'র প্রতিষ্ঠাবাষির্কীতে শুভসংঘের সদস্যদের হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

প্রধান অতিথি বলেন, 'কালের কণ্ঠ বরাবরই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও দেশ গঠনে অনন্য ভূমিকা পালন করে আসছে। তিনি বলেন, 'আমি নিয়মিত পড়ি কাগজটি। এ কাগজের প্রতিবেদনগুলো বেশ গঠনমূলক ও সময়োপযোগী। কালের কণ্ঠ দেশের উন্নয়নকে প্রাধান্য দিয়ে থাকে-এটা তাদের লেখনীতেই স্বাক্ষর রেখে চলেছে।'

আরো পড়ুন তৃতীয় দিনের অনশনে শিক্ষকরা, অসুস্থ ৫৪ 

বক্তৃতা শেষে তিনি সেখানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে না পেরে নোয়াখালী জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ কে এম জহিরুল ইসলাম  মুঠোফোনে ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় বিভিন্ন অনুষদসমূহের ডিন, ইনস্টিটিউটসমূহের পরিচালকবৃন্দ, রেজিস্ট্রার, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, হলের প্রভোস্ট, ছাত্র নির্দেশনা পরিচালক, দপ্তরসমূহের পরিচালক, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন বিভাগের ছাত্র-শিক্ষক, শুভসংঘের সদস্য, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য