kalerkantho


বেড়ায় শিশুকে শ্বাসরোধ ও গলা কেটে হত্যা, চাচী আটক

আঞ্চলিক প্রতিনধি, পাবনা   

১১ জানুয়ারি, ২০১৮ ২০:৪৮



বেড়ায় শিশুকে শ্বাসরোধ ও গলা কেটে হত্যা, চাচী আটক

ছবি : কালের কণ্ঠ

পাবনার বেড়ায় মোঃ মাশরাফি মর্তুজা তামিম (৬) নামের এক শিশু-শ্রেণির ছাত্রকে শ্বাসরোধ ও গালাকেটে হত্যা করা হয়েছে। সে বেড়া আলহেরা একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজের শিশু-শ্রেণির ছাত্র ও উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের খাকছাড়া চকপাড়া গ্রামের মোঃ মুনসুর আমিনের ছেলে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতর চাচী আঞ্জুয়ারা খাতুন (৪৫) নামের একজনকে আটক করেছে।

বেড়া মডেল থানা ও নিহতের পরিবার সুত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে চারটার সময় তামিম বাড়ির উঠানে দাগ কেটে ফুটবল খেলছিল। এতে তার চাচী আঞ্জুয়ারা খাতুন বাঁধা দিলে তামিমের বাবা মায়ের সঙ্গে ঝগড়া হয়। পরে তামিম বাড়ির পালানে খেলতে যায়। 

সন্ধা হলেও তামিম বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন খোজাখুজি করতে থাকে। পরে গ্রামের মসজিদের মাইক দিয়ে তামিম নিখোজ হওয়ার খবর প্রচার করা হয়। খোজাখুজির এক পর্যায়ে সন্ধা সাড়ে ছয়টার সময় পরিবারের লোকজন বাড়ির পাশের একটি খড়ের পালার নিকট তামিমের লাশ দেখতে পায়। 

এ সময় তারা দ্রুত বেড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ খবর পেয়ে তামিমের লাশ উদ্ধার করে আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ময়না তদন্তের জন্য পাবনা মর্গে প্রেরণ করেছে। 

নিহতর বাবা মুনসুর আমিন জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার ভাবীর সঙ্গে তাদের পারিবারিক বিরোধ চলছিল। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ভাবী আঞ্জুয়ারা খাতুন আমার ছেলে তামিমকে ডেকে নিয়ে ঘরের মধ্যে গালায় রশি দিয়ে শ্বাসরোধ করে বটি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। পরে সাবার অজান্তে লাশ বাড়ির বাইরে খড়ের পালার পাশে ফেলে রাখে। 

তিনি বলেন, বাড়িতে বোন ভাগ্নি ও অত্বীয়-স্বজন আসায় পিঠা খাওয়া উৎসব চলছিল বলে ছেলেকে নজরে রাখতে পারিনি। তিনি কান্না জড়িত কন্ঠে ছেলের হত্যাকারির ফাঁসি দাবী করে বলেন এভাবে যেন আর কোন শিশুকে হত্যার শিকার না হতে হয়।

বেড়া মডেল থানার ওসি মোজাফফর হোসেন বলেন, জিঞ্জাসাবাদের জন্য নিহতর চাচী আঞ্জুয়ারা খাতুন নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য পাবনা মর্গে প্রেরণ করেছে। রিপোট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুত্তি চলছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।


মন্তব্য