kalerkantho


কালীগঞ্জে পাইলস অপারেশন, দুই ঘণ্টা পর মৃত্যু!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৪:০৩



কালীগঞ্জে পাইলস অপারেশন, দুই ঘণ্টা পর মৃত্যু!

গাজীপুরের কালীগঞ্জে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভুল চিকিৎসার কারণে পাইলস অপারেশনের দুই ঘণ্টার মধ্যে এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এক সন্তানের জনক মৃত হুমায়ুন সরকার বৃহস্পতিবার উপজেলা সদরের কালীগঞ্জ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পাইলস অপারেশনের জন্য যান। ডা. মুস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে ডা. মাসুমের সহযোগিতায় ৩০ মিনিটের মধ্যে পাইলস অপারেশন করে। পরে আমার স্বামীকে কেবিনে নিয়ে এলে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। জরুরি ভিত্তিতে ডাক্তারকে ডাকলে তিনি নার্সকে একটি ইনজেকশন পুশ করার নির্দেশ দেন। ইনজেকশন দেয়ার পর রোগীর অবস্থার আরও অবনতি হয়। তার কিছুক্ষণ পরে ওই ডাক্তার ও নার্স মিলে আরও একটি ইনজেকশন পুশ করেন। ইনজেকশন পুশ করামাত্র রোগীর মুখ দিয়ে লালা (ফেনা) বের হতে থাকে।


আরো পড়ুন:


এ সময় তার স্ত্রী মর্জিনা আক্তার সীমা ডাকচিৎকার করলে ডাক্তাররা হুমায়ুনকে বেড থেকে সরিয়ে নিয়ে যান। তারা জানান তাকে নাকি আইসিইউতে রাখতে হবে। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে ডাক্তাররা বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য ওইদিন বিকাল ৪টার দিকে একটি অ্যাম্বুলেন্স এনে জরুরিভিত্তিতে হুমায়ুন সরকারকে টঙ্গীর ক্যাথারসিস হাসপাতালে স্থানান্তর করে। পরে ওই হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক জানান, অনেক আগেই তিনি মারা গেছেন। এদিকে কালীগঞ্জ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে তালা মেরে ডাক্তারসহ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সবাই পালিয়ে গেছেন।


আরো পড়ুন:


হুমায়ুন সরকারের স্ত্রী মর্জিনা আক্তার সীমা অভিযোগ করে বলেন, কর্তৃপক্ষ নিজের দোষ অন্যের কাঁধে চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রাতের আঁধারে তিন লাখ টাকার বিনিময়ে হত্যাকে ধামাচাপা দিতে রফাদফার চেষ্টা চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, রাতেই কালীগঞ্জ থানার এসআই আলাল উদ্দিন মৃত হুমায়ুনের প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন। নিহতের বড় ভাই ফারুক সরকার, ভগ্নিপতি তারাজ উদ্দিন, ভায়রা ভাই সোলেমান হোসেন ফ্লাঞ্জি এ ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর জন্য দায়ী চিকিৎসকের বিচারের দাবি জানান ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে।

 


মন্তব্য