kalerkantho


ছাত্রীদের শ্লীলতাহানির অভিযোগে

সিরাজগঞ্জ শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৭:০৩



সিরাজগঞ্জ শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

ছবি : কালের কণ্ঠ

নিরপত্তাহীনতায় আর শ্লীলতাহানির আশংকায় ভুগছে সিরাজগঞ্জ শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজের ছাত্রীরা। কলেজ প্রশাসনের কাছে বিচার প্রার্থনা করেও মিলছেনা কোন সমাধান। তাই বাধ্য হয়েই আন্দোলনে নেমেছে শিক্ষার্থীরা। আজ রবিবার সকালে দাবি আদায়ের জন্য ক্লাশ বর্জন করে মানববন্ধন করে শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে কলেজের অধ্যক্ষের দাবি অভিযুক্ত ব্যাক্তির তদন্ত চলছে। সাময়িকভাবে তাকে অনত্র বদলি করা হয়েছে। 

ঘটনার সূত্রপাত দীর্ঘদিনের কিন্তু লজ্জায় কোন ছাত্রীই এতোদিন মুখ খোলেনি। গত ১লা জানুয়ারি হাসপাতালের এমএলএসএস আনোয়ার হোসেন এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করলে ঘটনা সম্মুখে চলে আসে। ছাত্রীরা নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে কলেজ এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিষয়টি আলোচনা করে। আর এর সূত্র ধরেই আনোয়ারকে বদলি করে দেয়া হয়। কিন্তু এরপরেও থেমে থাকেনি নানা অপ্রিতিকর ঘটনা। 

সিড়ি, লিফট বা অন্ধকার রাস্তা সব খানেই থাবা মেলেছে বহিরাগত থেকে শুরু করে নিজেদের ক্যাম্পাসের চেনা মানুষ। কলেজ ক্যাম্পাস, ছাত্রী হোস্টেল কোনখানেই নিরাপত্তা নেই দেখে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে ছাত্রীরা। সবখানেই বহিরাগতসহ চেনা মানুষের সময়ে অসময়ে সন্দেহজনক আনাগোনা। তাই এবার আন্দোলনে নেমেছে কলেজের সব শিক্ষার্থী। 

৪র্থ বষের এক ছাত্রী জানান, আমাদের নিরাপত্তা নিয়ে আমরা উদ্বেগের মধ্যে থাকি। হাসপাতালে বিভিন্ন কাজে ও বিশেয় করে রাতের ল্যাবে আমাদের প্রায়ই এ ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। ৩য় বর্ষের আরেক ছাত্রী জানান বিষয় গুলো আমাদের কলেজ কর্তপক্ষকে বার বার বলার পরো তার কোন ব্যাবস্থা নেয়নি। যে কারনেই আজ আমাদের বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নামতে হয়েছে। 

২য় বর্ষের আরোক ছাত্রী জানান, আমাদের ৩টি হোস্টেলের একটি হোস্টেলও নিরাপদ নয়। রাতে দিনে হাসপাতাল ও কলেজের যে কেউ ইচ্ছা মাফিক অবাধে চলাচল করে। হোস্টেলের বার্থরুম থেকে নিজেদের থাকার ঘরের বিভিন্ন জাযগায় ছিদ্র করা হয়েছে। যা রিতিমত বিব্রতকর ও সন্মানহানী কর। 

আজ রবিবার থেকে চলা এ আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক জানান, শিক্ষার্থীদের ৮ দফা দাবি আদায়ের জন্য আমরা তাদের পাশে থেকে কাজ করে যাবো। অন্যদিকে বিএমএ এর সভাপতি ডা: জহুরুল হক রাজা এ ঘটনার জন্য দোষি ব্যাক্তিদের দ্রুত আইনের আওয়াতায় এনে সাস্থির দাবি জানান।   

সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের ডা: আকরামুজ্জামান আরএমও জানান, অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত কর্মচারিকে শাস্তি স্বরুপ অনত্র বদলি করা হয়েছে। নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোর ব্যাবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।  

শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজ কলেজের অধ্যক্ষ ডা: মো: রফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি নিয়ে একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিং করা হয়েছে। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয়া হবে। নিরাপত্তার স্বার্থে সিসি ক্যামেরা লাগানোর জন্য চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি। 

ছাত্রীদের নিরাপত্তার বিষয়টি প্রধান করে ৮ দফা দাবি নিয়ে রবিবার সকালে ক্লাশ বর্জন করে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা। দ্রুততম সময়ের মধ্যে দাবি আদায় না হলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেবে বলে ঘোষণা দেয় শিক্ষার্থীরা। 

 


মন্তব্য