kalerkantho


নোয়াখালীতে যুবলীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী   

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ২২:২৯



নোয়াখালীতে যুবলীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

নোয়াখালীর প্রধান বানিজ্যিক কেন্দ্র বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে রেলওয়ের পরিত্যক্ত একটি পুকুর দখলের চেষ্টা নিয়ে স্থানীয় যুবলীগ সমর্থিত দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় কম্পক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। এ সময় কয়েকটি দোকানের সাঁটার কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত এবং ভাঙচুর করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল বুধবার রাতেও দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়। এ নিয়ে চৌমুহনী বাজারে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

স্থানীয় এলাকাবসী জানায়, গতকাল বুধবারের হামলা ও সংঘর্ষের জের ধরে আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে স্থানীয় যুবলীগের জাহাঙ্গীর আলমের অনুসারীরা চৌমুহনী পোস্ট অফিস সড়কে ও করিমপুর সড়কে ধারালো অস্ত্রসস্ত্র ও লাঠিসোঠা নিয়ে মহড়া দেয়। একই সময়ে যুবলীগের কামরুজ্জামান রিয়াদ গ্রুপের অনুসারীরা সেখানে জড়ো হয়। পরে তাদের দুই পক্ষই পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও হামলায় লিপ্ত হয়। 

ধারালো অস্ত্র ও আগ্নেয়াস্ত্রের মহড়া দেখে ব্যবসায়ীদের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই পক্ষকে দুই দিকে সরিয়ে দিয়ে মাঝখানে অবস্থান নেয়। পাল্টাপাল্টি হামলা-সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে মো. রাজুকে (২০) নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

পাল্টাপাল্টি হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে যুবলীগ নেতা কামরুজ্জামান রিয়াদ জানায়, যুবলীগের জাহাঙ্গীরসহ একটি গ্রুপ পোস্ট অফিস সড়কের পাশে রেলওয়ের একটি পরিত্যক্ত জায়গা দখলের চেষ্টা করছে। তাঁরা এর প্রতিবাদ করায় তাঁর দুই ভাইকে গত মঙ্গলবার রাতে এবং গতকাল কুপিয়ে আহত করা হয়। এ ছাড়া গতকাল পোস্ট অফিস সড়কে তাঁদের দোকানসহ কয়েকটি দোকানের সাঁটার কুপিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ করা হয়। এ বিষয়ে জাহাঙ্গীরের বক্তব্য জানার জন্য গতকাল একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন ধরেননি। 

সংঘর্ষের ঘটনা নিশ্চিত করে বেগমগঞ্জ থানার ওসি মো. ফিরোজ আলম মোল্লা জানান, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে দুই পক্ষকে দুই দিকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সন্ধ্যায় দুই পক্ষের দু’জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনার পর নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। তবে চৌমুহনী শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

 


মন্তব্য