kalerkantho


আসামির হামলায় দুই পুলিশ সদস্য আহত

বরিশাল অফিস    

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১২:২৮



আসামির হামলায় দুই পুলিশ সদস্য আহত

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় আসামির ধারালো অস্ত্রের আঘাতে এএসআই-সহ দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টায় উপজেলার বেলুহার নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন আগৈলঝাড়া থানার এএসআই জাহিদ হোসেন ও পুলিশ কনস্টেবল সোহাগ। পুলিশের ওপর  হামলাকারী সুজন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার, মাদক ও চুরিসহ পাঁচ মামলা রয়েছে। আহত দুই পুলিশ সদস্যকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ সদস্যকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত কারর ঘটনায় ওই রাতে আহত এএসআই জাহিদ বাদী হয়েছে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশের ওপর হামলায় জড়িত থাকায় সুজন ভূঁইয়ার মা শাহেনুর বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, সুজনের বিরুদ্ধে দুইটি মাদক মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে। সেই অনুযায়ী মঙ্গলবার রাতে তাকে গ্রেপ্তারের জন্য তার বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় সুজনকে গ্রেপ্তার করা হলে সে চিৎকার দিয়ে লোকজন জড়ো করে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ সময় সুজনসহ স্থানীয়রা পুলিশ সদস্যদের অতর্কিতে হামলা চালায়। একপর্যায়ে পুলিশের ওই দুই সদস্যকে রড দিয়ে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। এ সময় সুজন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান।  আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আগৈলঝাড়া থানার ওসি (তদন্ত) আবুল খায়ের জানান,  মামলায় সুজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকায়  এএসআই জাহিদসহ পুলিশ সদগস্যরা তাকে গ্রেপ্তার করতে যান। পুলিশ সুজনের ঘরে প্রবেশ করা মাত্রই চিৎকার দিয়ে লোকজন জড়ো করে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এক পর্যায়ে সুজনের মা এএসআই জাহিদ ও পুলিশ সদস্য সোহাগকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে।

ওসি আরো জানান, সুজন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে আড়ৈলঝারা থানায় দুইটি মাদক, চুরি, ডাকাতি ও দ্রুত বিচার আইনসহ পাঁচটি মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় আহত এএসআই জাহিদ বাদী হয়ে সরকারি কাজে বাধাদান ও পুলিশের ওপর  হামলার অভিযোগ এনে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এতে সুজন ও তার মা শাহেনুর বেগমসহ বেশ কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। তবে আসামি  গ্রেপ্তারের স্বার্থে তাদের নাম ও সংখ্যা এই মুহুর্তে প্রকাশ করা যাবে না বলে তিনি জানান। 


মন্তব্য