kalerkantho


জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে শিক্ষা মন্ত্রী

জঙ্গিবাদ, মাদক রোধ করতে পারে এমন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

বরিশাল অফিস   

২১ মার্চ, ২০১৮ ২১:৩৮



জঙ্গিবাদ, মাদক রোধ করতে পারে এমন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

জঙ্গিবাদ, মাদক আর সন্ত্রাস রোধ করতে পারে এমন ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। তাই পাঠ্যপুস্তকে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয় অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে। কেবল পড়ালেখা নয়, শরীর ও মানসিক বিকাশে শিক্ষার্থীদের এমন কর্মসূচিতে যোগ দিতে উদ্বুদ্ধ করার জন্য পরিবার থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। আজ বুধবার বরিশালে ৪৭তম জাতীয় শীতকালিন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ এসব করা বলেন। জাতীয় স্কুল, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা ক্রীড়া সমিতির আয়োজনে এ ক্রীড়া প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক প্রফেসর মো. মাহাবুবুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী, সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার এসএম রুহুল আমিন, বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বের্ডের চেয়ারম্যান জিয়াউল হকসহ বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা।

এ সময়ে শিক্ষা মন্ত্রী আরো বলেন, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, জঙ্গিবাদ ও মাদকের প্রভাব থেকে শিক্ষার্থীদের দূরে রাখতে সকলকে সচেতন হতে হবে। কারণ জঙ্গিবাদ ও মাদক দেশ-জাতি স্থিতিশীলতার জন্য এক হুমকি। নতুন প্রজন্মকে আধুনিক জ্ঞান ও প্রযুক্তিতে দক্ষ করে তুলতে হবে, যাতে তারা বিশ্বের যে কোনো জায়গায় প্রতিযোগিতায় টিকতে পারে। জনগণের প্রতি দায়বদ্ধ নৈতিক মূল্যবোধসম্পন্ন দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে।

এর আগে শিক্ষা মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ বিশেষ অতিথিরা  জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পর স্মারক বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে মন্ত্রী এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। পরে  কুচকাওয়াজ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে বিভিন্ন ইভেন্টের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা শুরু হয়।  গতকাল থেকে শুরু হওয়ায় এ প্রতিযোগীতা চলবি আগামী ২৫ মার্চ পযর্ন্ত।

এবারের প্রতিযোগিতায় চারটি অঞ্চলের ২৭২টি স্কুল, সাতটি মাদরাসা ও একটি কারিগরি বিদ্যালয় থেকে ৪৬৪ জন ছাত্র এবং ৩৪৪ জন ছাত্রীসহ মোট ৮০৮ জন প্রতিযোগী হকি, ক্রিকেট, বাস্কেটবল, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন ও টেবিল টেনিসসহ মোট ১৩টি ইভেন্টের খেলায় অংশ নেবে। চারটি অঞ্চলের মধ্যে চট্টগ্রাম, সিলেট ও কুমিল্লা নিয়ে গঠিত ‘বকুল অঞ্চলের’ খুলনা ও বরিশাল নিয়ে গঠিত ‘গোলাপ অঞ্চলের’ ঢাকা ও ময়মনসিংহ নিয়ে গঠিত ‘পদ্মা অঞ্চলের’ এবং রাজশাহী ও রংপুর নিয়ে গঠিত ‘চাপা অঞ্চলের; এই প্রতিযোগীতায় অংশ নিচ্ছে।

জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা, দ্বিতীয় স্থান অধিকারী প্রতিষ্ঠানকে ৪০ হাজার এবং তৃতীয় স্থান অধিকারী প্রতিষ্ঠানকে ৩০ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে।  এছাড়া প্রতিযোগিতার প্রতিটি ইভেন্টে প্রথম স্থান অধিকারীকে স্বর্ণ, দ্বিতীয় স্থান অধিকারীকে রৌপ্য এবং তৃতীয় স্থান অধিকারীকে তামার মেডেল-ট্রফিসহ বিভিন্ন হারে প্রাইজবন্ড পুরুস্কার হিসেবে প্রদান করা হবে।



মন্তব্য