kalerkantho


কুমিল্লায় ছাত্রলীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত ১৫

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

২১ মার্চ, ২০১৮ ২৩:০২



কুমিল্লায় ছাত্রলীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত ১৫

কুমিল্লার বরুড়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রচারণাকালে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সাথে বিএনপি প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে দুই দলের ১৫ জন আহত হয়েছেন।

আজ বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ৯জন ছাত্রলীগ ও ৬জন বিএনপি নেতাকর্মী বলে দাবি করেন স্ব স্ব দলের নেতৃবৃন্দ। আহত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বিএনপি নেতাকর্মীরা কুমিল্লা শহরের সদর হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। আগামী ২৯ মার্চ এ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

জানা যায়, কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার খোশবাস (দক্ষিণ) ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের আবদুর রবের নৌকা প্রকীতের পক্ষে বুধবার সন্ধ্যায় বরুড়া কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি রকির নেতৃত্বে মিছিল বের হয়। মিছিল চলাকালে বিএনপির প্রার্থী আবদুর রবের (দুই প্রার্থীর একই নাম) সমর্থকদের সাথে সংঘর্ষ বাধে। এতে ছাত্রলীগের ৯ জন ও বিএনপির জন আহত হয়।

সংঘর্ষে বরুড়া কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি রকি কালের কণ্ঠকে জানান, সন্ধ্যার পর বরুড়া গ্রামে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা নৌকার পক্ষে প্রচারণার অংশ হিসেবে মিছিল করি। এ সময় বিএনপির প্রার্থীর সমর্থকদের আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে আমিসহ ৯ নেতাকর্মীকে আহত করে। আহত অন্যরা হলো বায়েজিদ, মাহমুদ, ফয়সাল, মাসুম, শুভ, ফারুক, ফয়সাল পলাশ। 

অপরদিকে বিএনপির প্রার্থী আবদুর রব অভিযোগ করেন, নৌকার প্রার্থীর লোকজন সন্ধ্যার পর মিছিল নিয়ে হঠাৎ করে আমার সমর্থক নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালায় এবং তাদের বাড়িঘর ভাংচুর করে। এতে বিএনপির ৬ নেতাকর্মী আহত হন। আহতরা হলেন বিএনপি নেতা দুলাল, মোহাম্মদ আলী, মাসুম, পারভেজ, রফিক, তৈয়ব আলী। চিকিৎসার জন্য তাদের কুমিল্লা সদর হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সংঘর্ষের কথা স্বীকার করে বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজম উদ্দিন কালের কণ্ঠকে জানান, সেখানে ত্রিমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। জাতীয় পার্টির প্রার্থীর (কেফায়েত উল্লাহ) উঠান বৈঠককালে আওয়ামী লীগ-বিএনপির সংঘর্ষ হয়েছে। খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে। তবে সংঘর্ষে জাতীয় পার্টির সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন প্রধান দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতৃবৃন্দ।


মন্তব্য