kalerkantho


পার্বতীপুরে পোড়ানো হলো ১৬ হাজার ৩৬২টি দলিল

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ১৮:৪৯



পার্বতীপুরে পোড়ানো হলো ১৬ হাজার ৩৬২টি দলিল

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রার অফিসে ২০০১ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত পড়ে থাকা ১৬ হাজার ৩৬২টি দলিল পোড়ানো হয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় অফিস চত্বরে এই দলিলগুলো পোড়ানো হয়। 

এ বিষয়ে পার্বতীপুর উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রার বাদল কৃষ্ণ কালের কণ্ঠকে বলেন, ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বরে ঢাকার মহাপরিদর্শক  খাঁন মোহাম্মাদ আঃ মান্নান এর স্বাক্ষরিত নির্দেশ মোতাবেক চলতি বছরের গত ফেব্রুয়ারী মাসের প্রথম সপ্তাহে গোটা উপজেলায় মাইকিং করা হয়েছে। সেই সাথে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ ১০ ইউপি ও পৌর মেয়রকেও চিঠি দিয়ে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, অনেক ক্রেতা জমি রেজিষ্ট্রি করে আর মূল দলিল নিয়ে যাননি। ফলে এভাবেই ২০০১ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত ১৬ হাজার ৩৬২টি দলিল সাব রেজিষ্ট্রার অফিসে জমা রয়েছে। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সোমবার তিনি নিজেই আগুন দিয়ে দলিলগুলো পোড়ানোর কাজ শুরু করেন। তাঁকে এ কাজে সহযোগিতা করেন অফিস স্টাফ জনি ও ফরহাদ। এ সময় সাব রেজিষ্টার বসে বসে তা পর্যবেক্ষণ করেন।

এদিকে এই দলিল পোড়ানোকে কেন্দ্র করে আজ মঙ্গলবার পার্বতীপুর উপজেলার জমির ক্রেতারা ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন। 

২০০৪ সালে পিতা কর্তৃক দুই ছেলেকে দেওয়া জমির মালিক সামসুদ্দোহা ও বদরুদ্দোজা জানান, তাদের দুই ভাইয়েরও দলিল সেখানে ছিলো। দলিল রেজিষ্ট্রির রশিদ দেখাতে না পারায় তারা মূল দলিল এর আগে নিতে পারেননি। 

তারা বলেন, জমির রেজিষ্ট্রির সময় ক্রেতাগণকে যে রশিদ দেওয়ার কথা সে রশিদগুলো দলিল লেখকের কাছে জমা থাকে। পরবর্তীতে তা সংগ্রহ করার কথা মনে না থাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। অপরদিকে ওই রশিদের খোঁজ করা হলেও সংশ্লিষ্ট দলিল লেখক জানান, অসুবিধা নাই, আমি আছি সময় মত মূল দলিল পাবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন। এভাবেই অনেকের দলিল পড়ে থাকে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে। 

দলিল পোড়ানোর ঘটনাটিকে জমির ক্রেতাদের ভোগান্তির মধ্যে ফেলবে বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

 


মন্তব্য