kalerkantho


ঝালকাঠিতে শিল্পমন্ত্রী

আওয়ামী লীগ সরকারই যুগোপযোগি শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছে

ঝালকাঠি প্রতিনিধি    

২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ২২:৫৪



আওয়ামী লীগ সরকারই যুগোপযোগি শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছে

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, এক সময় প্রাইমারি বিদ্যালয়গুলো জরাজীর্ণ ছিল। বটগাছের তলায়, পুকুরের ঘাটলায় ক্লাস হতো। এখন আর সেই অবস্থা নেই। আমরা সবগুলো স্কুলে ভবন করে দিচ্ছি। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে সবগুলো প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারি করে দিয়েছে। একমাত্র আওয়ামী লীগ সরকারই শিক্ষকদের মর্যাদা বৃদ্ধি করে যুযোপযোগি শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছে। আমরা বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টি করতে পেরেছি। 

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে ঝালকাঠির শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণ মা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। উপজেলা শিক্ষা অফিস এ সমাবেশের আয়োজন করে। 

শিল্পমন্ত্রী বলেন, শিক্ষা হচ্ছে জাতির মেরুদণ্ড, এই মেরুদণ্ডে উৎপত্তি হয় প্রইমারী শিক্ষা থেকে। এটা অনুধাবন করতে পেরেছিলেন বলেই বঙ্গবন্ধু ওই সময়কার সকল প্রাইমারি স্কুলকে জাতীয়করণ করলেন। তখন এক লাখ ৬০ হাজার শিক্ষককে তিনি সরকারি পদমর্যাদা দিলেন। পরবর্তী সরকারগুলো কোনো প্রাইমারি স্কুল আর সরকারি করেনি। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পরে ২৭ হাজার প্রাইমারি স্কুলকে জাতীয়করণ করা হয়েছে। এর মাধ্যমে এই দেশের শিক্ষার ভীত মজবুত করে দেওয়া হয়েছে। 

পহেলা জানুয়ারি সারা দেশে বই উৎসব হয় জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আজকে অভিভাবকদের চিন্তা করতে হয় না, ছেলে স্কুলে গেলে বই কেনার পয়সা আছে কিনা। বই কেনার অভাবে আজকে কোনো শিক্ষার্থীকে পড়ালেখা থেকে ঝড়ে পড়তে হচ্ছে না। কারণ বর্তমান সরকার বছরের শুরুতেই শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে নতুন বই তুলে দিচ্ছে। আজকে পহেলা জানুয়ারি ঈদ উৎসবের মত বাংলাদেশে বই উৎসব হয়। পাশাপাশি সরকার বৃত্তি ও উপবৃত্তি দিচ্ছে। এ অবস্থাটা আজকে শেখ হাসিনা সৃষ্টি করে দিয়েছেন। তাইতো মা সমাবেশে ব্যাপক উপস্থিতিই প্রমাণ করে, শেখ হাসিনার প্রতি আপনাদের সমর্থন রয়েছে। 

ডিজিটাল ব্যবস্থার মাধ্যমে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে দাবি করে আমির হোসেন আমু বলেন, আজকে ছোট শিশুরাও মোবাইল ফোনে ও ল্যাপটপে ইন্টারনেট ব্যবহার করে সারা বিশ্বের খবর জানতে পারে, এটার নাম হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ। শুধু মাত্র বই ভিত্তিক পড়াশুনা নয়, শিশুরা প্রাইমারি স্কুলে বসে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে সারা বিশ্ব থেকে জ্ঞান অর্জন করতে সক্ষম হচ্ছে। আমাদের উদ্দেশ্য ছিল দেশের সন্তনরা যেন বিদেশিদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে যেতে পারে। আমরা দেশকে ডিজিটাল করে, এটা অর্জন করেছি। 

শেখ হাসিনা দেশে পরিপূর্ণ শিক্ষানীতি প্রনয়ন করেছেন জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এই দেশে কোনো শিক্ষা নীতি ছিল না। শেখ হাসিনা সর্বপ্রথম বাংলাদেশে একটি পরিপূর্ণ শিক্ষানীতি প্রনয়ন করেছেন। এই শিক্ষানীতি সারা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যুগপোযুগী শিক্ষা ব্যবস্থা প্রনয়ন করা হয়েছে। আজকে সারা বিশ্ব শেখ হাসিনার এই কর্মযজ্ঞকে স্বীকৃতি দিচ্ছে। আজকে নারীর ক্ষমতায় শেখ হাসিনার মাধ্যমে হচ্ছে। বাবার নামের সঙ্গে মায়ের নাম যুক্ত করে নারী জাতিকে সম্মানিত করেছেন। মাতৃত্বকালীন ছটি ছয় মাস করা হয়েছে। 

এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান।  

ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ছাইয়াদুজ্জামান, অভিভাবক ইসরাত জাহান সোনালী ও শারমিন মৌসুমি কেকা। 


মন্তব্য