kalerkantho


বন্দুকযুদ্ধে নিহত

সৎ চরিত্রের প্রত্যয়নপত্র পেয়েছিলেন মাদক কারবারি যুবলীগ নেতা

রফিকুল ইসলাম, রাজশাহী    

২২ মে, ২০১৮ ১২:৩৫



সৎ চরিত্রের প্রত্যয়নপত্র পেয়েছিলেন মাদক কারবারি যুবলীগ নেতা

‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত মাদক কারবারি লিয়াকত আলী মণ্ডল (৪৫)

রাজশাহীর পুঠিয়ায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত মাদক কারবারি লিয়াকত আলী মণ্ডল (৪৫) উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়ন যুবলীগের ২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি। তিনি দীর্ঘদিন ধরে মাদকের কারবার করে এলেও তাঁকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিতেন পুঠিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র রবিউল ইসলাম রবি। সম্প্রতি লিয়াকতকে তিনি সৎ চরিত্রের অধিকারী এবং কোনো রাষ্ট্রদ্রোহী কাজে জড়িত নয় বলে প্রত্যয়নপত্রও দিয়েছিলেন। ওই প্রত্যয়নপত্র নেওয়ার তিন মাস ১২ দিনের মাথায় রবিবার রাতে তিনি বন্দুকযুদ্ধে নিহত হলেন। 

র‌্যাবের দাবি, লিয়াকত আলী মণ্ডল রাজশাহীর অন্যতম শীর্ষ মাদক কারবারি হিসেবে পরিচিত। তার নামে জেলার বিভিন্ন থানায় মাদক, চোরাচালান ও অপহরণসহ ১১টি মামলা রয়েছে।

প্রত্যয়নপত্রে দেখা যায়, গত ৮ ফেব্রুয়ারি পুঠিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র রবিউল ইসলাম উপজেলা শাখা আওয়ামী যুবলীগের প্যাডে লিয়াকতকে প্রত্যয়নপত্র দেন। তাতে উল্লেখ করা হয়, ‘বর্তমানে লিয়াকত আলী মণ্ডল রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি। আমি তাকে ব্যক্তিগতভাবে চিনি ও জানি। সে একজন সৎ চরিত্রের পরিশ্রমী ছেলে। আমার জানামতে সে কোনো রাষ্ট্রদ্রোহী কাজে জড়িত নয়। আমি তার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ, জীবনের উন্নতি ও মঙ্গল কামনা করি।’

তবে প্রত্যয়নপত্রের বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে মেয়র রবিউল বলেন, ‘স্থানীয় নেতাদের অনুরোধে চাকরি অথবা কোনো মামলাসংক্রান্ত বিষয়ে তাকে একটি দলীয় প্রত্যয়নপত্র দেওয়া হয়েছিল। আর যেদিন লিয়াকতকে প্রত্যয়নপত্র দেওয়া হয় সেদিন মাসিক সভায় ব্যস্ত ছিলাম। ওই সভার মধ্যেই প্রত্যয়নপত্রটি দেওয়া হয়েছিল। ওই সময় পুঠিয়া থানার তৎকালীন ওসি সায়েদুর রহমানও লিয়াকতের নামে কোনো মামলা আছে কি না তা বলতে পারেননি। 


মন্তব্য