kalerkantho


সৈয়দপুরে ঠিকাদারের বাসায় ডাকাতি, নগদ অর্থ ও স্বর্ণালংকার লুট

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি   

১৮ জুন, ২০১৮ ১৯:৪০



সৈয়দপুরে ঠিকাদারের বাসায় ডাকাতি, নগদ অর্থ ও স্বর্ণালংকার লুট

নীলফামারীর সৈয়দপুরে এক ঠিকাদারের বাসায় ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাত দল গৃহকর্ত্রীকে অচেতন করে স্টীলের আলমিরা খুলে নগদ সাড়ে ৪ লাখ টাকা ও ৯ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে গেছে। গতকাল রবিবার সৈয়দপুর শহরের পার্বতীপুর সড়কে গণসাহায্য সংস্থার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সামনে ঠিকাদার মো. মনোয়ার হোসেনের বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

গৃহকর্তা ঠিকাদার মনোয়ার হোসেন জানান, ঘটনার দিন রাত আনুমানিক সাড়ে দশটার দিকে তিনি স্ত্রীকে বাসায় একা রেখে বাইরে যান। এ সময় স্ত্রী শামীম আরা লিপি বাসার নিচতলায় তাঁর ঠিকাদারী নিজস্ব অফিসে অবস্থান করছিলেন। এর মধ্যে প্রথমে দুই ব্যক্তি এসে বাসায় আওয়াজ দিয়ে তিনি বাসায় আছেন কিনা তা তাঁর স্ত্রীর কাছ থেকে নিশ্চিত হয়ে চলে যায়। পরবর্তীতে মাথায় হেলমেট পড়া চারজনের ডাকাতদল মোটরসাইকেল নিয়ে বাসার প্রধান ফটকে আসে এবং তাঁর স্ত্রীর শট নাম ধরে ডাকতে থাকে। পরিচিত কেউ এসেছে ভেবে তাঁর স্ত্রী গেট খুলে দেওয়া মাত্র ডাকাতদল সজোরে গেটে ধাক্কা মারে। এতে তাঁর স্ত্রী গেটের কাছে নিচে পড়ে যান। এ সময় ডাকাতদল চেতনানাশক স্প্রে করে তাকে অচেতন করে সেখানে ফেলে রাখেন। এরপর ডাকাত দল তাঁর কাছে থাকা বাসার সব চাবি নিয়ে গেট খুলে বাসার দোতলার ঢুকে পড়ে। পরে ডাকাতদল বাসার সবকিছু তছনছ করে চালের ড্রামের মধ্যে রাখা নগদ দেড় লাখ টাকা এবং স্টীলের আলমিরার তালা খুলে ড্রয়ারে রাখা আরো নগদ তিন লাখ টাকা ও ৯ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে সটকে পড়ে। পরে গৃহকর্তার ছেলে বাসায় ফিরে ডাকাতির ঘটনাটি টের পেয়ে তাকে খবর দেয়।

ডাকাতির খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল ও সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহজাহান।
 
এ ব্যাপারে সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো. তাজউদ্দিন খন্দকার জানান, এটিকে ডাকাতি বলা যাবে না। এটি একটি পরিকল্পিত ঘটনা। গৃহকর্তার পরিচিত লোকজনই পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী ঘটনাটি ঘটিয়েছে। এ বিষয়ে এখনও কোনো অভিযোগ মেলেনি। অভিযোগ পাওয়া গেলে ঘটনাটির তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে ঠিকাদারের বাসায় এ ধরনের ডাকাটির ঘটনায় সৈয়দপুর শহরের মানুষের মধ্যে চরম আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তারা রাতের বেলায় শহরের আবাসিক এলাকায় পুলিশি টহল বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন।

 

 



মন্তব্য